বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > করোনামুক্ত হয়েও স্থানীয়দের বাধায় বাড়িতে ঢুকতে পারলেন না কালিয়াগঞ্জের যুবক
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

করোনামুক্ত হয়েও স্থানীয়দের বাধায় বাড়িতে ঢুকতে পারলেন না কালিয়াগঞ্জের যুবক

  • ওই ব্যক্তির দেহে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ার পর তাঁর পরিবারকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়।

করোনামুক্ত হয়েও বাড়ি ফেরা হল না উত্তর দিনাজপুরের কালিয়াগঞ্জের বাসিন্দা এক যুবকের। প্রতিবেশীদের বাধায় তাঁকে যেতে হল আইসোলেশন সেন্টারে। সোমবার হাসপাতাল থেকে ছুটি পাওয়ার পর বাড়িতে পৌঁছলে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন স্থানীয়রা। এর পর ওই ব্যক্তিকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে নিয়ে যান প্রশাসনিক আধিকারিকরা। 

১০ দিন আগে কালিয়াগঞ্জের বাসিন্দা ওই ব্যক্তির দেহে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ে। করোনা হাসপাতালে শুরু হয় তাঁর চিকিৎসা। সোমবার করোনামুক্ত হওয়ার পর তাঁকে ছুটি দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এর পর বাড়ি ফিরে বিক্ষোভের মুখে পড়েন তিনি। 

ওই ব্যক্তির দেহে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ার পর তাঁর পরিবারকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়। সিল করে দেওয়া হয় তাঁর বাড়ি। স্থানীয়দের অভিযোগ, ওই ব্যক্তিকে করোনামুক্ত ঘোষণা করে এর আগেও একবার বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তার পর ফের তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এবার যে ফের তেমনটা হবে না তার নিশ্চয়তা কী?

প্রশাসনের কর্তাদের সঙ্গে স্থানীয়দের আলোচনার পর ঠিক হয় আপাতত ৪ দিন কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে থাকবেন ওই ব্যক্তি। কালিয়াগঞ্জ হাসপাতালের সুপার প্রকাশ রায় বলেন, ওই ব্যক্তি সম্পূর্ণ সুস্থ। তবু আতঙ্কিত হয়ে এলাকাবাসী বাধা দিচ্ছে। আমরা তাদের বোঝানোর চেষ্টা করছি। আপাতত ৪ দিন যুবককে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা হচ্ছে। 

 

 

বন্ধ করুন