বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > প্রেমে ফাটল, পরিবারকে ভিডিয়ো কল করে তিস্তায় ঝাঁপ যুবকের
পরিবারের লোকেদের ভিডিও কল করে আত্মঘাতী যুবক। ছবিটি প্রতীকী।
পরিবারের লোকেদের ভিডিও কল করে আত্মঘাতী যুবক। ছবিটি প্রতীকী।

প্রেমে ফাটল, পরিবারকে ভিডিয়ো কল করে তিস্তায় ঝাঁপ যুবকের

  • পরিবারের লোকেদের ভিডিয়ো কল করে আত্মঘাতী হলেন এক যুবক।

পরিবারের লোকেদের ভিডিয়ো কল করে আত্মঘাতী হলেন এক যুবক। ওই যুবক জলপাইগুড়ির রানিনগর এলাকার বাসিন্দা। ধীরাজ প্রজাপতি নামে ওই যুবক তিস্তা ব্রিজের উপর থেকে নদীতে ঝাঁপ মারেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা গিয়েছে, ধীরাজ প্রজাপতি জলপাইগুড়ির বাসিন্দা হলেও অসমের একটি মেয়ের সঙ্গে তাঁর প্রেমের সম্পর্ক ছিল দীর্ঘদিনের। কিন্তু সম্প্রতি তাঁদের সম্পর্কের অবনতি হতে থাকে। দীর্ঘদিনের সম্পর্ক শেষ হওয়ার বিষয়টি কোনওভাবেই মেনে নিতে পারেননি ধীরাজ। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, ধীরাজের দাদা মনোজ প্রজাপতি এবং বৌদি দু'জনেই বিএসএফে কাজ করেন। তাঁরাই এলাকায় একটি দোকান খুলে দিয়েছিলেন বছর ২৯-র ধীরাজকে। ভালোই চলছিল সেই দোকানটি। কিন্ত, সম্পর্কে চিড় ধরায় বেশ কয়েকদিন ধরে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন ধীরাজ।

পরিবারের লোকেরা জানাচ্ছেন, আত্মহত্যার আগেরদিন রাতে বন্ধুর জন্মদিনের পার্টিতে যাওয়ার নাম করে বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন ধীরাজ। বাড়ি থেকে বেরোনোর পর এক বন্ধুর সঙ্গে মদ্যপানও করেছিলেন। এরপর রাত বাড়তেই তিস্তা ব্রিজের উপর থেকে পরিবারের হোয়াটসঅ্যাপে গ্রুপে ভিডিয়ো কল করে। ভিডিয়ো কল করতে করতে নিজের দুঃখের কথা পরিবারের লোকেদের কাছে তুলে ধরেন। আর নিজের জীবন শেষ করে দেওয়ার কথা বলেন।

পরিবারের লোকেরা ভিডিয়ো কলে তাকে অনেক বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেন, বোঝানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু, তাতে কোনও কাজ হয়নি। শেষে ভিডিয়ো কল চলাকালীন তিস্তা ব্রিজ থেকে নদীতে ঝাঁপ দেন ধীরাজ। এরপরেই পুলিশকে খবর দেন বাড়ির লোকেরা। নদীতে নামানো হয় ডুবুরি।

বন্ধ করুন