মাটিগাড়া থানা। ফাইল ছবি
মাটিগাড়া থানা। ফাইল ছবি

ফের পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু, এবার মাটিগাড়ায়

  • পরিবারের দাবি, ব্যাচনবাবুর কাছে ২০,০০০ টাকা ঘুষ চেয়েছিলেন পুলিশকর্মীরা। সেই টাকা দিতে না পারায় ব্যাপক মারধর করা হয় তাঁকে।

রাজ্যে ফের পুলিশ হেফাজতে বন্দিমৃত্যু। সিঁথির পর এবার মাটিগাড়া থানায়। মৃতের নাম ব্যাচন রায়। পেশায় সে বেআইনি মদ বিক্রেতা। বুধবার দুপুরে তাঁকে মত্ত অবস্থায় তুলে নিয়ে আসে পুলিশ। বিকেলে মৃত্যু হয়। এর পর থানার সামনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন নিহতের আত্মীয় ও প্রতিবেশীরা। তাদের দাবি, ঘুষের টাকা জোগাড় করতে না-পারায় খুন করা হয়েছে ব্যাচনকে। রাতে শিলিগুড়ি কমিশনারেটের অতিরিক্ত বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

মাটিগাড়া ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় বেআইনি মদের ব্যবসা করতেন ব্যাচনবাবু। তাঁর পরিবারের দাবি, বুধবার দুপুরে তাঁকে তুলে আনে পুলিশ। তার পর দিনভর আর খোঁজ মেলেনি তাঁর। বিকেলে ফোন করে জানানো হয় তিনি অসুস্থ। তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। হাসপাতালে গিয়ে দেখি সব শেষ।

পরিবারের দাবি, ব্যাচনবাবুর কাছে ২০,০০০ টাকা ঘুষ চেয়েছিলেন পুলিশকর্মীরা। সেই টাকা দিতে না পারায় ব্যাপক মারধর করা হয় তাঁকে। অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে মৃত্যু হয় ব্যাচন রায়ের।

পুলিশের যদিও দাবি, মারধরের অভিযোগ ঠিক নয়। ব্যক্তিকে যখন আটক করা হয়েছিল তখন মত্ত অবস্থায় ছিলেন তিনি। এর পর থানায় তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হন। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার আগেই মৃত্যু হয় তাঁর। এক পুলিশকর্তা জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তিকে যেখানে রাখা হয়েছিল সেখানে সিসিটিভি ক্যামেরা রয়েছে। তার ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে।


বন্ধ করুন