বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > খরচ বাঁচানোর আশা, বাংলা থেকে তেল আনতে অসমে
উত্তরবঙ্গের একাধিক পেট্রল পাম্পে তেলের দাম সেঞ্চুরি পেরিয়ে গিয়েছে (প্রতীকী ছবি)
উত্তরবঙ্গের একাধিক পেট্রল পাম্পে তেলের দাম সেঞ্চুরি পেরিয়ে গিয়েছে (প্রতীকী ছবি)

খরচ বাঁচানোর আশা, বাংলা থেকে তেল আনতে অসমে

  • স্থানীয় সূত্রে খবর, শনিবারও অসমের একাধিক পেট্রল পাম্পে কোচবিহার, আলিপুরদুয়ারের তুলনায় অন্তত ৫টাকা প্রতি লিটারে দাম কম ছিল।

সীমান্ত পেরলেই অসম। কোচবিহার, আলিপুরদুয়ারের বিভিন্ন পাম্পে পেট্রলের দাম সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছে। তবে গাড়ি চালকদের একাংশের দাবি,  সীমানা পেরিয়ে অসমের পেট্রল পাম্পে পেট্রলের দাম কিছুটা কম। সেকারণে কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারের সীমানা লাগোয়া এলাকায় চলাচলকারী গাড়িগুলি সীমানা পেরিয়ে তেল আনতে চলে যাচ্ছে অসমে। সেখানে গিয়ে পেট্রল ভরে ফের তারা চলে আসছে বাংলায়। কিন্তু কেন তারা তেল ভরতে যাচ্ছে অসমে। গাড়ি চালকদের একাংশের দাবি ,শনিবার অসমের একাধিক পাম্পে পেট্রলের দাম ছিল ৯৫টাকা ৫৮ পয়সা। এদিকে আলিপুরদুয়ারের একাধিক পেট্রল পাম্পে পেট্রল বিক্রি হয়েছে ১০০.৩২ টকা লিটার দরে। অন্য়দিকে কোচবিহার শহরের স্টেশন চৌপথি এলাকাতে পেট্রলের দাম ছিল ১০০ টাকা ০৯ পয়সা।

এদিকে স্থানীয় সূত্রে খবর, অসম বাংলা সীমান্তের কামাখ্য়াগুড়ির, বারোবিশার পেট্রল পাম্পগুলিতে তেল নেওয়ার লাইন আচমকাই কমে গিয়েছে। অনেকে পার্শ্ববর্তী অসমের শিমুলটাফুতে তেল আনতে যাচ্ছেন। সেখানে শনিবারও পেট্রলের দাম ছিল ৯৫.৫৮ টাকা প্রতি লিটার। পাশাপাশি অসম বাংলা সীমানা লাগোয়া কোকরাঝাড়েও পেট্রলের দাম ছিল বাংলার তুলনায় অন্তত ৫ টাকা কম। এদিকে গাড়ি চালকদের একাংশের দাবি দিনে প্রায় ২০ থেকে ৩০ লিটার পেট্রল লেগে যায়। সেক্ষেত্রে অসমের পাম্পে ৫ টাকা কমে তেল পেলেও অন্তত ১৫০ টাকা বাঁচানো সম্ভব। সেকারণেই অনেকে অসমের সীমান্ত লাগোয়া বিভিন্ন পাম্পে ভিড় জমান।

 

বন্ধ করুন