বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > সবাই কি সুরে রয়েছেন ? আঁচ পেতে হাওড়ায় বিজেপি নেতাদের নিয়ে বৈঠকে শুভেন্দু
শুভেন্দু অধিকারী, বিজেপি বিধায়ক (ফাইল ছবি)
শুভেন্দু অধিকারী, বিজেপি বিধায়ক (ফাইল ছবি)

সবাই কি সুরে রয়েছেন ? আঁচ পেতে হাওড়ায় বিজেপি নেতাদের নিয়ে বৈঠকে শুভেন্দু

  • তবে এই বৈঠকে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় যেমন ছিলেন না, তেমনি বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও ছিলেন না। 

ভোটের আগে তৃণমূলে থাকাকালীন অবস্থায় বেসুরো গাইছিলেন রাজীব বন্দ্য়োপাধ্যায়। এরপর ভোটে পরাজয়ের পর তিনি ফের বেসুরো গাইতে শুরু করেছেন। এদিকে রাজীবের সেই বেসুরো গাওয়াকে ঘিরে ইতিমধ্যেই দলের অন্দরে নানা কথা উঠতে শুরু করেছে। এদিকে সেই হাওড়াতে আরও একাধিক নেতা রয়েছেন যাঁরা ২১শের নির্বাচনের আগে  তৃণমূলে ভিড়ে গিয়েছিলেন। এবার তাঁদের একাংশকে নিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বৈঠক করেন শুভেন্দু অধিকারী। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, মূলত তাঁদের মনের হদিশ পেতে নানা আলোচনা সারেন তিনি। পাশাপাশি দলের কাজে তাঁদের আরও সক্রিয় করতেই এই বিশেষ উদ্যোগ বলে মনে করা হচ্ছে। 

কে কে ছিলেন বৈঠকে। দল সূত্রে খবর বৈঠকে হাওড়ার প্রাক্তন মেয়র তথা গত বিধানসভা ভোটে শিবপুর আসনের বিজেপি প্রার্থী রথীন চক্রবর্তী, বালির বিজেপি প্রার্থী তথা প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়া, তৃণমূলের দুজন প্রাক্তন বিধায়ক জটু লাহিড়ি ও শীতল সর্দার সহ প্রাক্তন তৃণমূল নেতা সুপ্রীতি চট্টোপাধ্যায় এই বৈঠকে ছিলেন। তবে রাজীবের দেখা মেলেনি বৈঠকে। রথীন চক্রবর্তীর বাড়িতে বৈঠক হয়।

 তবে প্রশ্ন উঠছে তবে কী আগামী পুর নির্বাচনে রথীন চক্রবর্তীকে মুখ করেই পুর নির্বাচন লড়তে চাইছে বিজেপি, বলা ভালো বিজেপির অন্দরে শুভেন্দু অধিকারীর টিম? তবে রথীন চক্রবর্তী জানিয়েছেন,' এটা নিয়ে আগামী দিনে দলের অন্দরে আলোচনা হবে। তার পরেই তা ঠিক হবে। তবে আমরা কোনওভাবেই দল পরিবর্তনের কথা ভাবছি না। হাওড়ায় আমরা যারা বৈঠকে ছিলাম তাঁরা একসঙ্গেই থাকতে চাই। শুভেন্দু তাঁদের সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছিলেন। সেই মতো  বৈঠক হয়। আগামী দিনে আমরা কীভাবে চলব আর উনি কী চাইছেন সেব্যাপারে প্রাথমিক আলোচনা হয়েছে।' 

 

ভোটের আগে তৃণমূলে থাকাকালীন অবস্থায় বেসুরো গাইছিলেন রাজীব বন্দ্য়োপাধ্যায়। এরপর ভোটে পরাজয়ের পর তিনি ফের বেসুরো গাইতে শুরু করেছেন। এদিকে রাজীবের সেই বেসুরো গাওয়াকে ঘিরে ইতিমধ্যেই দলের অন্দরে নানা কথা উঠতে শুরু করেছে। এদিকে সেই হাওড়াতে আরও একাধিক নেতা রয়েছেন যাঁরা ২১শের নির্বাচনের আগে  তৃণমূলে ভিড়ে গিয়েছিলেন। এবার তাঁদের একাংশকে নিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বৈঠক করেন শুভেন্দু অধিকারী। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, মূলত তাঁদের মান, অভিমান, মনের হদিশ পেতে নানা আলোচনা সারেন তিনি। পাশাপাশি দলের কাজে তাঁদের আরও সক্রিয় করতেই এই বিশেষ উদ্যোগ বলে মনে করা হচ্ছে। 

কে কে ছিলেন বৈঠকে। দল সূত্রে খবর বৈঠকে হাওড়ার প্রাক্তন মেয়র তথা গত বিধানসভা ভোটে শিবপুর আসনের বিজেপি প্রার্থী রথীন চক্রবর্তী, বালিরর প্রার্থী তথা প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়া, তৃণমূলের দুজন প্রাক্তন বিধায়ক জটু লাহিড়ি ও শীতল সর্দার সহ প্রাক্তন তৃণমূল নেতা সুপ্রীতি চট্টোপাধ্যায় এই বৈঠকে ছিলেন। তবে রাজীবের দেখা মেলেনি বৈঠকে। তবে প্রশ্ন উঠছে তবে কী আগামী পুর নির্বাচনে রথীন চক্রবর্তীকে মুখ করেই পুর নির্বাচন লড়তে চাইছে বিজেপি, বলা ভালো বিজেপির অন্দরে শুভেন্দু অধিকারীর টিম। তবে রথীন চক্রবর্তী জানিয়েছেন, এটা নিয়ে আগামী দিনে দলের অন্দরে আলোচনা হবে। তার পরেই তা ঠিক হবে। তবে আমরা কোনওভাবেই দল পরিবর্তনের কথা ভাবছি না। হাওড়ায় আমরা যারা বৈঠকে ছিলাম তাঁরা একসঙ্গেই থাকতে চাই। শুভেন্দু তাঁদের সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছিলেন। সেই মতো তাঁর বাড়িতেই বৈঠক হয়। আগামী দিনে আমরা কীভাবে চলব আর উনি কী চাইছেন সেব্যাপারে প্রাথমিক আলোচনা হয়েছে। 

|#+|

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

বন্ধ করুন