বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আত্মঘাতী হলেন বিষ্ণুপুরের মল্ল রাজপরিবারের প্রবীণ সদস্য
প্রয়াত সলিল সিংহ ঠাকুর
প্রয়াত সলিল সিংহ ঠাকুর

আত্মঘাতী হলেন বিষ্ণুপুরের মল্ল রাজপরিবারের প্রবীণ সদস্য

  • পরিবার সূত্রে খবর, গুলি গলায় লেগে মাথা ভেদ করে বেরিয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গেই মৃত্যু হয় সলিলবাবুর। মানসিক অবসাদে আত্মহত্যা বলেই প্রাথমিকভাবে অনুমান করছে পুলিশ।

আত্মঘাতী হলেন বিষ্ণুপুর মল্ল রাজবংশের অন্যতম সদস্য সলিল সিংহ ঠাকুর (৭০)। শনিবার সকাল সাড়ে সাতটা নাগাদ নিজের বাসভবনের বসার ঘরে গুলি চালিয়ে আত্মঘাতী হন তিনি। মল্ল রাজপরিবারের সদস্যের গুলিবিদ্ধ দেহ উদ্ধারের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় বিষ্ণুপুরে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিষ্ণুপুর থানার পুলিশ। দেহের পাশ থেকে একটি একনলা বন্দুক উদ্ধার করে পুলিশ। দেহ ময়নাতদন্তের জন্য বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়। ঘটনায় রাজপরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

পরিবার সূত্রে খবর, গুলি গলায় লেগে মাথা ভেদ করে বেরিয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গেই মৃত্যু হয় সলিলবাবুর। মানসিক অবসাদে আত্মহত্যা বলেই প্রাথমিকভাবে অনুমান করছে পুলিশ। পাশাপাশি একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশ জানিয়েছে, মৃতদেহের পাশ থেকে বন্দুক পাওয়া গেছে। লাইসেন্সপ্রাপ্ত পারিবারিক বন্দুক থেকেই গুলি চালিয়ে আত্মঘাতী হন তিনি। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। রাজপরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গেও কথা বলছেন তদন্তকারীরা।

প্রতিবেশীদের দাবি, নানান শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছিলেন তিনি। সেই জন্যে মানসিক অবসাদগ্রস্থ ছিলেন তিনি। তাই আত্মহননের পথ নেন সলিলবাবু।রাজপরিবারের সদস্যের গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুর ঘটনা মানতে পারছেন না তাঁরা। তদন্ত করে এর সঠিক কারণ বের করা হোক দাবি প্রতিবেশীদের।

 

বন্ধ করুন