বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > মালদায় হাত-মুখ বেঁধে গলায় ছুরি ঠেকিয়ে নাবালিকাকে ধর্ষণ
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

মালদায় হাত-মুখ বেঁধে গলায় ছুরি ঠেকিয়ে নাবালিকাকে ধর্ষণ

  • নাবালিকার এক আত্মীয় জানিয়েছেন,  অভিযুক্ত সঞ্জীব মণ্ডল এর আগেও এরকম ঘটনা ঘটিয়েছে। কিন্তু লজ্জায় ভয়ে পুলিশের কাছে যায়নি সেই সব নির্যাতিতাদের পরিবারের লোকেরা।

গলায় ছুরি ধরে হাত-মুখ বেঁধে এক নাবালিকাকে ধর্ষণ করার অভিযোগে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ালো ভূতনি থানার আলাদিয়া এলাকায়। থানায় অভিযোগ জানালে ওই নাবালিকা ও তার পরিবারকে খুনের হুমকি দিয়েছে অভিযুক্ত যুবক। বুধবার সন্ধ্যায় এই ঘটনার পর রাতেই ভূতনি থানায় অভিযুক্ত যুবক সঞ্জীব মণ্ডলের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে নির্যাতিতা নাবালিকার পরিবার। ঘটনার তদন্তে নেমে বৃহস্পতিবার সকালে অভিযুক্ত সঞ্জীব মণ্ডলকে গ্রেফতার করেছে ভূতনি থানার পুলিশ। 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার বিকালে দাদুর সাথে জমিতে গিয়েছিলেন ওই নাবালিকা। পাটের জমিতে কাজ করছিলেন ওই নাবালিকার দাদু। সেই সময় তাকে একা পেয়ে প্রথমে ফুসলিয়ে পাটের জমিতে থেকে খানিকটা দূরে নিয়ে আসে অভিযুক্ত সঞ্জীব মণ্ডল। এরপর ওই নাবালিকার হাত-মুখ বেঁধে গলায় ছুরি ঠেকিয়ে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। এব্যাপারে পুলিশকে এবং বাড়িতে জানালে খুন করে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়।

নির্যাতিতা ওই নাবালিকা পুলিশকে জানিয়েছে, ঘটনার পর বেশ কিছুক্ষণ পাটক্ষেতের মধ্যে পড়ে ছিল সে। এরপর তার গোঙানির আওয়াজ শুনেই জমিতে কাজ করা কয়েকজন ছুটে আসেন। এবং নাবালিকাকে উদ্ধার করে ভূতনি প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে ওই নাবালিকার মুখ থেকেই পুরো ঘটনার কথা জানতে পারেন পরিবারের লোকেরা।

নাবালিকার এক আত্মীয় জানিয়েছেন,  অভিযুক্ত সঞ্জীব মণ্ডল এর আগেও এরকম ঘটনা ঘটিয়েছে। কিন্তু লজ্জায় ভয়ে পুলিশের কাছে যায়নি সেই সব নির্যাতিতাদের পরিবারের লোকেরা। 

ভূতনি থানার পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অভিযুক্ত সঞ্জীব মণ্ডলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওই নাবালিকার শারীরিক পরীক্ষা করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। 

 

বন্ধ করুন