বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > করোনা রুখতে মিরিক লেক ও গার্ডেন বন্ধ করল পুরসভা, অশনি সংকেত পর্যটন শিল্পে
করোনার থাবা থেকে পর্যটন শিল্পকে বাঁচাতে মিরিক লেক ও গার্ডেন বন্ধ করল পুরসভা (‌ছবি সৌজন্য ফেসবুক)‌
করোনার থাবা থেকে পর্যটন শিল্পকে বাঁচাতে মিরিক লেক ও গার্ডেন বন্ধ করল পুরসভা (‌ছবি সৌজন্য ফেসবুক)‌

করোনা রুখতে মিরিক লেক ও গার্ডেন বন্ধ করল পুরসভা, অশনি সংকেত পর্যটন শিল্পে

মিরিক লেকের পাশাপাশি মিরিক গার্ডেনও বন্ধ করে হয়েছে।

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে লাগাম টানতে উদ্যোগ নিল মিরিক পুরসভা। বন্ধ করে দেওয়া হল মিরিক লেক ও গার্ডেন। সংক্রমণ যাতে রোধ করা যায়, সেই লক্ষ্যে তৎপর হয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। 


ইতিমধ্যেই পর্যটন কেন্দ্রগুলিতে পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পর্যটকদের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেই জানিয়েছেন মিরিক পুরসভার চেয়ারম্যান লালবাহাদুর রাই। 

তিনি বলেন, ‘ যেভাবে করোনা বাড়ছে, তার কথা চিন্তা করেই আমরা মিরিক লেক বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিলাম। কারণ, মিরিক লেকে প্রচুর ভিড় হয়। আর ভিড় হলেই সেখান থেকে করোনা ছড়ানোর আশঙ্কা আছে। আমরা তাই মিরিক লেকের পাশাপাশি মিরিক গার্ডেনও বন্ধ করে দিয়েছি। আমরা পুলিশ সুপার-সহ অন্যান্য প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এছাড়া আমরা মিরিকের প্রতিটি হোটেলে ও মোটেলে চিঠি পাঠাচ্ছি, যাতে তাঁরাও পরিষেবা বন্ধ করে দেন। আমরা চাই যাতে করোনা ছড়িয়ে না পড়ে। মিরিকে পর্যটকরা আসেন, তাই আমরা এসব সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হচ্ছি। আমি জানি এতে মিরিকবাসীর কিছু অসুবিধা হবে৷ কিন্তু পরিস্থিতির জন্য সকলকে তা মেনে নিতে হবে।’‌

প্রসঙ্গত, করোনার প্রথম ঢেউয়ে বিপুল ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়তে হয়েছিল পাহাড়ের পর্যটন শিল্পকে। লকডাউনের জেরে ব্যাহত হয়েছিল সমস্ত পরিষেবা। ফলে, পর্যটন শিল্পে ক্ষতির পরিমাণ গিয়ে দাঁড়ায় ১০০ কোটি টাকা। মাঝে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হতেই পর্যটন ব্যবসায়ীদের মুখে হাসি ফোটে। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর পাহাড় খুলতেই পাহাড়ে পর্যটকের ঢল নামে। কিন্তু সেই ক্ষত সারার আগেই ফের চোট লাগল। করোনা বাড়তেই পাহাড়ের পর্যটন শিল্প ধাক্কা খেল।


বন্ধ করুন