বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে বেরিয়ে আসার পর বিজেপি সভাপতির কাছে ক্ষমা বিধায়কের
কল্যাণীর বিধায়ক অম্বিকা রায়
কল্যাণীর বিধায়ক অম্বিকা রায়

হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে বেরিয়ে আসার পর বিজেপি সভাপতির কাছে ক্ষমা বিধায়কের

বিজেপির নতুন রাজ্য কমিটিতে মতুয়া সম্প্রদায়ের কেউ জায়গা না পাওয়ায় দলের মধ্যে দানা বাঁধে।

বিজেপি বিধায়কদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়ে এসেছিলেন ৫ জন। ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই নিজের ভুল স্বীকার করে নিলেন হোয়াটসঅ্যাপ থেকে বেরিয়ে আসা বিধায়কদের মধ্যে একজন। রাজ্যের বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন কল্যাণীর বিধায়ক অম্বিকা রায়।

সম্প্রতি বিজেপিতে নতুন রাজ্য কমিটি গঠিত হয়েছে। নতুন এই রাজ্য কমিটি গঠিত হওয়ার পরই বিজেপির ৫ বিধায়ক, অম্বিকা রায়, মুকুটমণি অধিকারী, অশোক কীর্তনীয়া, সুব্রত ঠাকুর ও অসীম সরকারের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ত্যাগ করার খবর সামনে আসে। এই ঘটনার পরই বিজেপির অন্দরে চরম অস্বস্তি শুরু হয়ে যায়।


বিজেপি পরিষদীয় দলের মুখ্য সচেতক মনোজ টিগ্গা ৫ বিধায়কের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছাড়ার কথা স্বীকার করেও নিয়েছেন। তবে তিনি জানিয়েছেন, হোয়াটসঅ্যাপ ত্যাগী বিধায়কদের সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে। তাঁরা ভুল বুঝতে পেরেছেন। দলত্যাগী বিধায়কদের মধ্যে একজন কল্যাণীর বিধায়ক অম্বিকা রায় জানান, ‘‌আমি একান্তভাবে ক্ষমা প্রার্থী। ভুল ভাবনাচিন্তা থেকেই এই ধরনের কাজ করেছিলাম।’‌

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, বিজেপির নতুন রাজ্য কমিটিতে মতুয়া সম্প্রদায়ের কেউ জায়গা না পাওয়ায় দলের মধ্যে ক্ষোভ দানা বাঁধে। মনে করা হচ্ছে, তারই বহিঃপ্রকাশ হিসাবে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে বেরিয়ে আসা। রাজ্য কমিটিতে মতুয়া সম্প্রদায়ের কেউ না থাকাটা দুর্ভাগ্যজনক বলেই মনে করছেন অনেকে। তবে এই বিষয়ে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডার সঙ্গে বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুর কথা বলতে চান বলেই সূত্রের খবর।

বন্ধ করুন