বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > জলের তলায় একের পর এক এলাকা, ক্যানিংয়ে মেছোভেড়ির বাঁধ কাটালেন তৃণমূল বিধায়ক
ক্যানিংয়ে নিজে দাঁড়িয়ে থেকে মেছো ভেড়ির বাঁধ কাটালেন তৃণমূল বিধায়ক শওকত মোল্লা (নিজস্ব চিত্র )
ক্যানিংয়ে নিজে দাঁড়িয়ে থেকে মেছো ভেড়ির বাঁধ কাটালেন তৃণমূল বিধায়ক শওকত মোল্লা (নিজস্ব চিত্র )

জলের তলায় একের পর এক এলাকা, ক্যানিংয়ে মেছোভেড়ির বাঁধ কাটালেন তৃণমূল বিধায়ক

  • স্থানীয় সূত্রে খবর, এই ভেড়ি ব্যবসার সঙ্গে শাসকদলের একাংশ যুক্ত রয়েছেন।

একের পর এক ভেরি। এদিকে টানা বৃষ্টিতে সেই ভেরির জলও উপচে গিয়েছে। এর সঙ্গেই বাসিন্দাদের অভিযোগ, মেছো ভেড়ির কারনে জল নামছে না। বুধবার ক্যানিং পূর্ব বিধানসভা এলাকায় নিজে দাঁড়িয়ে থেকে সেই ভেড়ির বাঁধ কেটে জল বের করার ব্যবস্থা করলেন বিধায়ত শওকত মোল্লা। বুধবার দুপুরে তাম্বুলদাহ এলাকায় তিনি এই ধরনের বাঁধ কাটার ব্যবস্থা করেন। এদিকে স্থানীয় সূত্রে খবর, এই ভেড়ি ব্যবসার সঙ্গে শাসকদলের একাংশ যুক্ত রয়েছেন। তাঁদের মুখের উপর কথা বলার ক্ষমতা কারোরই নেই। তবে এদিন সেই শাসকদলেরই বিধায়ক নিজে দাঁড়িয়ে থেকে বাঁধ কাটার ব্যবস্থা করায় ভরসা পেয়েছেন সাধারণ মানুষ। 

বিধায়ত শওকত মোল্লা বলেন,'কোথাও ভেরি হওয়ার কারনে জল নিকাশির ক্ষেত্রে কিছু সমস্যা হচ্ছে। যেখানে যেখানে এই অবস্থা আছে সেখানে নিকাশির ব্যবস্থা করা হবে। বাঁধ কেটে জল বের করার ব্য়বস্থা করা হবে। তবে মূল সমস্যা হল নিকাশি ব্যবস্থা। একদিকে মিনাখাঁ আর অপরদিকে ক্যানিং। আমাদের নিকাশির খুব সমস্যা হচ্ছে। সেকারনে ক্যানিং ২ এর বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়ে গিয়েছে। রাস্তার উপর কোথাও কোমর জল, কোথাও আবার হাঁটু জল রয়েছে। ভেলায় করে গ্রামগুলিতে যেতে হচ্ছে। প্রায় ৫০-৬০টা মতো ক্যাম্প চলছে। প্রায় দেড় থেকে ২ লক্ষ মানুষ সমস্য়ার মধ্য়ে রয়েছেন। বাঁধ কাটার পর কিছু জায়গায় জল নামছে। কিন্তু মিনাখাঁর জলটা না নামলে সমস্যা পুরোপুরি মিটবে না।' 

 

বন্ধ করুন