বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > দ্বাদশীতে রাজ্য থেকে বিদায় নিচ্ছে বর্ষাও, হাতছানি শীতের
দ্বাদশীতে রাজ্য থেকে বিদায় নিচ্ছে বর্ষাও, হাতছানি শীতের (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
দ্বাদশীতে রাজ্য থেকে বিদায় নিচ্ছে বর্ষাও, হাতছানি শীতের (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

দ্বাদশীতে রাজ্য থেকে বিদায় নিচ্ছে বর্ষাও, হাতছানি শীতের

  • আগের থেকে পারদ খানিকটা কমেছে। 

আগের থেকে পারদ খানিকটা কমেছে। ঠোঁট ফাটছে। শিরশির করছে গা-হাত-পা। তারইমধ্যে রাজ্য থেকে বিদায় নিতে শুরু করেছে বর্ষা। আর ভারী বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই বঙ্গে। আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, বীরভূম–কোচবিহার থেকে বর্ষা বিদায় নিয়েছে। আগামী দু’‌দিনের মধ্যে রাজ্য থেকে পুরোপুরি বিদায় নিতে পারে বর্ষা। চলতি সপ্তাহেই গোটা দেশ থেকেই বর্ষা বিদায় নিতে পারে বলেও মৌসম ভবন সূত্রে খবর। যা শীত আসার হাতছানি বলে অনেকে মনে করছেন।

হাওয়া অফিসের নির্ঘণ্ট অনুযায়ী, রাজ্য থেকে বর্ষার বিদায় নেওয়ার নির্ধারিত দিন ১৪ অক্টোবর। কিন্তু বঙ্গোপসাগরে একের পর এক নিম্নচাপ তৈরি হওয়ায় সেই বিদায়বেলা বিলম্বিত হয়েছে। দুর্গাপুজোতেও বৃষ্টির পূর্বাভাস ছিল। নিম্নচাপটি দ্রুত মুখ ঘুরিয়ে বাংলাদেশ পাড়ি দেওয়ায় সেই আশঙ্কা শেষ পর্যন্ত সত্যি হয়নি। তবে মহাষষ্ঠী ও মহাঅষ্টমীর দিন বঙ্গে বৃষ্টি হয়েছিল।

ইতিমধ্যেই রাজ্যে অবশ্য একটা হিমেল ভাব শুরু হয়েছে। হিম পড়তে শুরু করেছে। বর্ষা পুরোপুরি বিদায় হলে হিমেল ভাব আরও বাড়তে পারে। ফলে এবার কালীপুজোর সময় রাতে হিম পড়ার সম্ভাবনাও থাকছে। তবে বর্ষা ও শীতের মাঝামাঝি গভীর নিম্নচাপ বা ঘূর্ণিঝড় তৈরি হওয়ার আশঙ্কা থাকে। তেমন কিছু হানা দিলে ফের আবহাওয়া বদলে যেতে পারে বলে মনে করছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

বন্ধ করুন