বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > দাঙ্গা হলে সব থেকে বেশি ক্ষতি হয় মুসলমানদের: দিলীপ ঘোষ
দিলীপ ঘোষ।
দিলীপ ঘোষ।

দাঙ্গা হলে সব থেকে বেশি ক্ষতি হয় মুসলমানদের: দিলীপ ঘোষ

  • এদিন সিপিএম কংগ্রেসকেও ছাড়েননি দিলীপ ঘোষ। বলেন, ‘আজ সিপিএম – কংগ্রেস – তৃণমূল বিজেপিকে মুসলিম বিরোধী বলছে। তোমরা যদি মুসলমানদের এত ভালবাসো তাহলে স্বাধীনতার ৭৩ বছর পরেও কেন মুসলমানরা গরিব? 

বিধানসভা নির্বাচন যত এগোচ্ছে ততই রাজ্যে স্পষ্ট হচ্ছে ধর্মীয় মেরুকরণ। বিজেপিকে মুসলিম বিরোধী বলে সংখ্যালঘু ভোটে ঘরে তুলতে চাইছে তৃণমূল। মঙ্গলবার হাওড়ার আমতায় সেই তকমা ঘোচানোর আপ্রাণ চেষ্টা করলেন দিলীপ ঘোষ। সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এলাকায় দাঁড়িয়ে দিলীপ ঘোষ বোঝানোর চেষ্টা করলেন, বিজেপি আসলে মুসলমানের ভাল চায়। 

ব্যতিক্রমীভাবে এদিন দিলীপবাবুর বক্তব্যের অনেকটা জুড়ে ছিল মুসলমান। এদিন তিনি বলেন, ‘মুসলিমদের আজ তোষণ করতে করতে শোষণ করছে। তাদের বাংলার মূল সমাজ থেকে আলাদা করে রেখেছে। আলাদা স্কুল, আইটিআই, হসপিটাল, পলিটেকনিক, কবরস্থান, হজ মঞ্জিল, মাদ্রাসার জন্য বোর্ড... সব মুসলমানদের জন্য আলাদা। হিন্দু মুসলমান আলাদা করে বোঝাচ্ছেন, তোমাদের জন্য অনেক কিছু করেছি। মুসলমানদের জন্য আপনি সত্যি করে থাকলে আজ বাংলায় একটা মুসলমানও গরিব থাকত না। আজ মুসলমান মানে ঠেলা চালাবে, ভ্যান চালাবে, সাইকেল মোটরসাইকেল সারাইয়ের দোকান করবে, রাজমিস্ত্রির কাজ করবে কেন? মুসলমানদের মধ্যে ডাক্তার – ইঞ্জিনিয়ার হতে নেই? উকিল হতে নেই? মাস্টার হতে নেই’? 

এদিন সিপিএম কংগ্রেসকেও ছাড়েননি দিলীপ ঘোষ। বলেন, ‘আজ সিপিএম – কংগ্রেস – তৃণমূল বিজেপিকে মুসলিম বিরোধী বলছে। তোমরা যদি মুসলমানদের এত ভালবাসো তাহলে স্বাধীনতার ৭৩ বছর পরেও কেন মুসলমানরা গরিব? সাচার কমিটির রিপোর্ট বলেছে বাংলার মুসলমানরা সব থেকে গরিব। তার জন্য কি বিজেপি দায়ী? বিজেপি এখানে ক্ষমতায় থাকলে এখানকার মুসলমানরা গুজরাতের মুসলমানের মতো ধনী হতো, কাজ-কম্মো চাকরি বাকরি করতো। আপনারা তাদের অশিক্ষিত করে রেখেছেন। তাদের ক্রিমিনাল করে রেখেছেন। আজ সব মুসলমান ছেলেদের নামে কেস। আজ পুলিশ ধমকি দিয়ে বলছে গণ্ডগোল কর, বোম বাঁধ, বিজেপিদেরকে মার। মুসলিমদের এই উন্নয়ন করেছেন আপনারা? মুসলমানরা বুঝতে পেরেছেন আপনারা তাদের বোকা বানিয়েছেন’। 

মুসলিমদের প্রতি দিলীপ ঘোষের আবেদন, ‘আমি মুসলমানদের কাছে ভোট চাইছি না। কিন্তু নিজের বুদ্ধিতে দেখুন। ভারতীয় জনতা পার্টি সাড়ে ছ বছর রাজত্ব করেছে। তার আগে ৫ বছর অটলজির সময় ক্ষমতায় ছিল। কোনও মুসলমানের গায়ে কেউ হাত দিয়েছে? বিজেপি যে রাজ্যে শাসন করছে সেখানে কোনও সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা হয়? এখানকার মুসলমান বাড়ির ছেলেরা গুজরাত – হরিয়ানায় চাকরি করছে। মুসলমান বলে তাকে কেউ কিছু বলেছে? অথচ পশ্চিমবাংলায় সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা হচ্ছে। বসিরহাট, বাদুড়িয়া, রানিগঞ্জ, আসানসোল, কালিয়াচক, ধূলাগড়ে হয়েছে। দাঙ্গা হলে গরিব মানুষই বেশি মার খায়। তাদের পালানোর জায়গা নেই। মুসলমানদের ক্ষতি হয়’।

দিলীপ ঘোষের অভিযোগ, ‘মুসলমানদের গরুপাচার, ড্রাগ পাচার, গাঁজা চাষে লাগিয়ে রাখা হয়েছে। তাদের কেস দিয়ে আটকে রাখা হয়েছে। তারা কোনও দিন মানুষ হতে পারবে না’।

সঙ্গে তাঁর দাবি, ‘ভারতীয় জনতা পার্টি কোনও ভেদাভেদ করে না। করবেও না। মোদীজি বলেছেন, সবকা সাথ, সবকা বিকাশ। তাই মোদীজি ২ টাকা কিলো চাল দিচ্ছেন। হিন্দু-মুসলমান সবাই পাচ্ছে। বাড়ি বাড়ি শৌচালয় বানিয়ে দিচ্ছেন। হিন্দু – মুসলমান দেখেননি। হিন্দু – মুসলমান না দেখে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় বাড়ি করে দিচ্ছেন। লকডাউনের সময় কি হিন্দু – মুসলমান দেখে রেশন দেওয়া হয়েছে? সমস্ত গরিব মানুষ রেশন পেয়েছেন। দিদিমণির ভাইয়েরা আর্ধেক কেটে নিয়েছেন। ডাল তো দেননি। অর্ধেক চাল দিয়েছেন। আর গমটা বাংলাদেশে পাচার করতে গিয়ে বর্ডারে ধরা পড়েছেন। যে মহিলাদের নামে ফ্রিতে গ্যাসের কানেকশন রয়েছে তাদের লকডাউনে ৩টে সিলিন্ডার ফ্রি দিয়েছেন। মহিলাদের জনধন অ্যাকাউন্টে মাসে ৫০০ টাকা করে দিয়েছেন। সে সব কি মুসলমানরা পাননি’? 

পালটা তৃণমূলের বিরুদ্ধে মেরুকরণের অভিযোগ তুলে দিলীপবাবু বলেন, ‘এই হচ্ছে বিজেপি – তৃণমূলের পার্থক্য। আপনারা সব জায়গায় হিন্দু – মুসলমান নিয়ে রাজনীতি করেন। ভাগাভাগি করে দেন। আজ বাংলার মুসলমানরা বুঝতে পেরেছে যে দিদিমণি আমাদের বোকা বানিয়েছে। বিজেপির ভয় দেখিয়ে। তাই আজকে ঝাঁকে ঝাঁকে মুসলমানরা বিজেপিতে জয়েন করছেন’।

বন্ধ করুন