বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > পাশের ঘরে পুড়ছে ছেলে, দেখেও বাঁচাতে এলেন না মা, চাঞ্চল্য নবদ্বীপে
সোমবার দেবজিতের দেহ উদ্ধার করে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। 
সোমবার দেবজিতের দেহ উদ্ধার করে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। 

পাশের ঘরে পুড়ছে ছেলে, দেখেও বাঁচাতে এলেন না মা, চাঞ্চল্য নবদ্বীপে

  • অভিযোগ, দাম্পত্য কলহ লেগে থাকত দাস দম্পতির মধ্যে। ফলে এর আগে স্বামী সন্তানকে ফেলে রেখে বাড়ি ছেড়ে একাধিকবার চলে গিয়েছেন সীমা দেবী।

অগ্নিদগ্ধ হয়ে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রের মৃত্যুতে চাঞ্চল্য ছড়াল নদিয়ার নবদ্বীপে। সোমবার বেলা দশটা নাগাদ নবদ্বীপ পৌরসভার ২২ নম্বর ওয়ার্ডের দণ্ডপানিতলা ঘাটের পুরুষ চরণ মাঠ এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। মৃত ছাত্রটির নাম দেবজিৎ দাস। বয়স তেরো বছর। প্রতিবেশীদের অভিযোগ, ছেলেকে পুড়িয়ে মেরেছেন মা সীমা দাস।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার সকালে নাবালক ছাত্রটির অগ্নিদগ্ধ নিথর দেহ ঘরে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা থানায় খবর দেয়। বিষয়টি জানাজানি হতেই এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। পেশায় রেল হকার দুলাল দাস ও তাঁর স্ত্রী সীমা দাস একমাত্র সন্তান দেবজিৎকে নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ওই এলাকাতেই বসবাস করতেন। অভিযোগ, দাম্পত্য কলহ লেগে থাকত দাস দম্পতির মধ্যে। ফলে এর আগে স্বামী সন্তানকে ফেলে রেখে বাড়ি ছেড়ে একাধিকবার চলে গিয়েছেন সীমা দেবী। পাশাপাশি নিজের সন্তানদের সাথেও সম্পর্ক খুব একটা ভালো ছিল না তাঁর।

এই দিন সকালে ছেলের অগ্নিদগ্ধ দেহ উদ্ধার হওয়ার সময় পাশের ঘরে একাই ছিলেন সীমা দেবী। এমনকী ঘরের জানালা দিয়ে ধোঁয়া বের হতে দেখেও তিনি ছেলেকে বাঁচানোর কোনও চেষ্টা করেননি বলে দাবি প্রতিবেশীদের। মা-ই ছেলেকে খুন করে পুড়িয়ে দিয়েছেন বলে দাবি তাঁদের। দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ।

 

বন্ধ করুন