বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ভাতা নয় চাকরি চাই, রাস্তায় লক্ষ্মীর ভাণ্ডার আছড়ে ভাঙলেন টেট উত্তীর্ণের মা
লক্ষ্মীর ভাণ্ডার তুলে আছাড় মারছেন স্বাতীদেবী।

ভাতা নয় চাকরি চাই, রাস্তায় লক্ষ্মীর ভাণ্ডার আছড়ে ভাঙলেন টেট উত্তীর্ণের মা

  • শুক্রবার বর্ধমান শহরের কার্জন গেটে চাকরির দাবিতে বিক্ষোভ দেখান ২০১৪ সালের টেট উত্তীর্ণরা। তাদের অভিযোগ, বারবার সরকারের তরফে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও নিয়োগপত্র পাননি তাঁরা।

লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের ৫০০ টাকা ভাতা নয়, টেট উত্তীর্ণ সন্তানের চাকরি চাই। এই দাবিতে শুক্রবার বর্ধমান শহরের রাজপথে টাকা জমানোর ভাঁড় আছড়ে ভাঙলেন এক মা। বললেন, পড়াশুনো করিয়ে ছেলে মেয়ের পেটের ভাতের ব্যবস্থা হচ্ছে না। কী করবো এই ৫০০ টাকা দিয়ে?

শুক্রবার বর্ধমান শহরের কার্জন গেটে চাকরির দাবিতে বিক্ষোভ দেখান ২০১৪ সালের টেট উত্তীর্ণরা। তাদের অভিযোগ, বারবার সরকারের তরফে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও নিয়োগপত্র পাননি তাঁরা। মুখ্যমন্ত্রী নবান্নে বসে প্রতিশ্রুতি দিলেও নিয়োগ হয়নি। এই পরিস্থিতিতে ‘জীবন্ত লাশ’ হয়ে বেঁচে রয়েছেন তাঁরা। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তাঁদের আবেদন, হয় নিয়োগ দিন নইলে মৃত্যু দিন।

এদিনের বিক্ষোভে বেকার যুবকদের সঙ্গে অংশগ্রহণ করেছিলেন তাঁদের মা - বাবারাও। স্বাতী বন্দ্যোপাধ্যায় নামে তেমনই এক মা প্রশ্ন তোলেন, কী হবে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারেক এই ভাতা নিয়ে? ঘরে শিক্ষিত বেকার ছেলে - মেয়ে। পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে চাকরি না পেয়ে হতাশায় ভুগছে। ঘোষণা সত্ত্বেও নিয়োগ হচ্ছে না। মা হিসাবে ছেলে - মেয়েকে এত কষ্ট করে মানুষ করলাম ৫০০ টাকা ভাতার জন্য? যারা পরীক্ষায় উত্তীর্ন হয়েছে তাদের পেটে যদি ভাতের ব‍্যবস্থা না হয় এই ভাতায় কী হবে’? এই কথা বলতে বলতেই সঙ্গে আনা একটি লক্ষ্মীর ভাঁড় রাস্তায় আছড়ে ভাঙেন তিনি। এদিন নিয়োগের দাবিতে জেলাশাসককে স্মারকলিপি দেন চাকরিপ্রার্থীরা।

 

বন্ধ করুন