বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আটা আনতে বলেছিলেন স্ত্রী, রাগে শিশুকন্যার গলা টিপে খুন করে নদীতে ভাসালেন বাবা?
শিশুকে গলা টিপে খুন করে নদীতে ভাসিয়ে দিল বাবা, অভিযোগ এমনটাই। প্রতীকী ছবি।
শিশুকে গলা টিপে খুন করে নদীতে ভাসিয়ে দিল বাবা, অভিযোগ এমনটাই। প্রতীকী ছবি।

আটা আনতে বলেছিলেন স্ত্রী, রাগে শিশুকন্যার গলা টিপে খুন করে নদীতে ভাসালেন বাবা?

  • স্থানীয়দের একাংশের দাবি মেয়েকে খুন করার পরেই ঘাবড়ে যায় ফেকারুল। নিজেই সে দেহটি স্থানীয় সুধানি নদীতে ফেলে দেয়। অভিযোগ এমনটাই। কিন্তু বিষয়টি পরে জানাজানি হয়ে যায়। প্রতিবেশীরা এসে মেয়েটির খোঁজ করে। তখনই আসল কথা বেরিয়ে আসে। পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। পুলিশ নদীতে দেহের খোঁজ পায়।

ঝগড়াটা বাবা মায়ের মধ্যে। আর তারই মাসুল গুনল ছোট্ট শিশু। উত্তর দিনাজপুরের ডালখোলার বাজারগাঁও পঞ্চায়েতের সোনারামপুরের ঘটনা। স্থানীয় সূত্রে খবর, বাবা মায়ের মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকত। বাবা ফেকারুল ভিনরাজ্যে শ্রমিক হিসাবে কাজ করতেন। তবে বর্তমানে তাঁর কাজ নেই। বাড়িতেই বেকার বসে রয়েছেন। বাড়িতে নিত্য আর্থিক অনটন। এনিয়ে সংসারে অশান্তি লেগেই আছে। স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে নিত্য অশান্তি। আর কোনও জিনিস আনতে বললেই রাগে একেবারে অগ্নিশর্মা হয়ে যেতেন ফেকরুল।

 রবিবার রাতে স্বামীকে আটা আনতে বলেছিলেন স্ত্রী। আর এতেই ব্যাপক রেগে যান ফেকরুল। এদিকে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে এনিয়ে ঝগড়া চরমে ওঠে। সেই ঝামেলা চলাকালীনই ঘরেতেই কাঁদছিল ১ বছর ২ মাস বয়সে শিশু কন্যা। তার গলা টিপে ধরে ওই যুবক। অভিযোগ এমনটাই।

এদিকে স্থানীয়দের একাংশের দাবি মেয়েকে খুন করার পরেই ঘাবড়ে যায় ফেকারুল। নিজেই সে দেহটি স্থানীয় সুধানি নদীতে ফেলে দেয়। অভিযোগ এমনটাই। কিন্তু বিষয়টি পরে জানাজানি হয়ে যায়। প্রতিবেশীরা এসে মেয়েটির খোঁজ করে। তখনই আসল কথা বেরিয়ে আসে। পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। পুলিশ নদীতে দেহের খোঁজ পায়। দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। তবে এই ঘটনায় কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি। কীভাবে ওই শিশুর মৃত্যু হয়েছে তা পুলিশ খতিয়ে দেখছে। 

বন্ধ করুন