বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ফের নন্দীগ্রামে প্রকাশ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল, হাতাহাতি থামাতে নামল পুলিশ

ফের নন্দীগ্রামে প্রকাশ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল, হাতাহাতি থামাতে নামল পুলিশ

প্রতিকি ছবি।

বলে রাখি, গত বৃহস্পতিবার নন্দীগ্রামে তৃণমূলের শহিদ স্মরণ অনুষ্ঠানে দলের গোষ্ঠীকোন্দল প্রকাশ্যে চলে এসেছিল। তৃণমূলের জেলা চেয়ারম্যান পীযূষ ভুঁইয়াকে মঞ্চে উঠতে দেওয়ার দাবিতে কুণাল ঘোষের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন অনুগামীরা।

বৃহস্পতিবারের পর রবিবার, ফের নন্দীগ্রামে প্রকাশ্যে চলে এল তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল। পুরনো ও নতুন ব্লক সভাপতির অনুগামীদের হাতাহাতি থামাতে ময়দানে নামতে হল পুলিশকে। রবিবার নন্দীগ্রামের আমদাবাদ এলাকার ঘটনা। এই ঘটনায় তৃণমূলের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

মহাদেব বাগের জায়গায় নন্দীগ্রাম ২ নম্বর ব্লকের নতুন সভাপতি হয়েছেন অরুণাভ ভুঁইয়া। নতুন জেলা কমিটির সদস্য নির্বাচন করতে রবিবার টাকাপুরা প্রাইমারি স্কুলে বসেছিল বৈঠক। সেখানে কোষাধ্যক্ষ বাছাই নিয়ে দুপক্ষের হাতাহাতি বেঁধে যায় শংকর রায়কে কোষাধ্যক্ষ মেনে নিতে নারাজ মহাদেব বাগ গোষ্ঠীর সদস্যরা। এর পরই দুপক্ষের মধ্যে প্রথমে বাগবিতণ্ডা ও পরে হাতাহাতি শুরু হয়ে যায়। পরিস্থিতি শান্ত করতে পুলিশকর্মীরা দুপক্ষকে দূরে সরিয়ে দেন। কিন্তু তাতেও উত্তেজনা প্রশমিত হয়নি।

বলে রাখি, গত বৃহস্পতিবার নন্দীগ্রামে তৃণমূলের শহিদ স্মরণ অনুষ্ঠানে দলের গোষ্ঠীকোন্দল প্রকাশ্যে চলে এসেছিল। তৃণমূলের জেলা চেয়ারম্যান পীযূষ ভুঁইয়াকে মঞ্চে উঠতে দেওয়ার দাবিতে কুণাল ঘোষের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন অনুগামীরা। তাদের অভিযোগ, শেখ সুফিয়ানকে মঞ্চে উঠতে দিলেও কেন পীযূষবাবুকে উঠতে দেওয়া হয়নি। দীর্ঘক্ষণ চলতে থাকে বিক্ষোভ। অবশেষে পরিস্থিতি শান্ত করতে বিক্ষোভকারীদের বিজেপির লোক বলে দাবি করেন কুণালবাবু।

 

বন্ধ করুন