বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > NB Tour: অহলদারা থেকে কাছেই পাখির স্বর্গরাজ্য, চেনেন দার্জিলিংয়ের সেই গ্রামকে?
এবার পুজোয় দার্জিলিং যাচ্ছেন?

NB Tour: অহলদারা থেকে কাছেই পাখির স্বর্গরাজ্য, চেনেন দার্জিলিংয়ের সেই গ্রামকে?

  • দিগন্ত বিস্তৃত শুধুই পাহাড়। উঁচু পাথরের উপর উঠে দাঁড়ান। অনুভব করতে পারবেন এই বিশ্ব চরাচরে কতটা ক্ষুদ্র আমরা। এখান থেকে যে অভিজ্ঞতা নিয়ে বাড়ি ফিরবেন তা মনে থাকবে অনেক অনেক দিন।

মেঘের সঙ্গে, পাহাড়ের সঙ্গে ছুটি কাটানোর অভিজ্ঞতা হয়তো আপনার আছে। কিন্তু পাখির সঙ্গে এবার পুজোর ছুটি কাটাবেন? তবে চলে যান লাটপানচার বা লাটপা্ঞ্চার। দার্জিলিংয়ের অফবিট ডেসটিনেশন। প্রায় ৫ হাজার ফুট উচ্চতায় অবস্থিত কার্শিয়াংয়ের এই গ্রাম। এখানে পাহাড় আছে, মেঘ আছে আর আছে পাখির দল। গাইডকে সঙ্গে নিয়ে পাহাড়ি পথে পাখি দেখার মজাই আলাদা।এখান থেকে কাছেই আছে অহলদারা।কাছেই আছে সিটং। সেখানেও ঘুরে আসতে পারেন একবার। মন ভরে যাবে।

এনজেপি স্টেশন, বাগডোগরা বিমানবন্দর, কিংবা শিলিগুড়ি জংশন থেকে লাটপাঞ্চার যাওয়ার গাড়ি পাওয়া যায়। ভাড়া করে চলে যান। কিছুটা যাওয়ার পরেই পাহাড়ি পথে ছুটে চলা শুরু হবে। অপূর্ব দুপাশের প্রাকৃতিক দৃশ্য।

লাটপাঞ্চারে নতুন করে হোমস্টে তৈরি হচ্ছে। যোগাযোগ করে চলে যেতে পারেন। তবে অনেকেই লাটপাঞ্চারে আলাদা করে রাত্রিবাস করেন না। তবে পাখি দেখতে গেলে একরাত থাকাটাই ভালো। পরের দিন ভোর ভোর গাইডকে সঙ্গে নিয়ে পাখি দেখতে বের হতে পারেন। 

পাইনের জঙ্গলের মধ্যে দিয়ে পায়ে চলা পথ। সেখান দিয়েই হাঁটতে হবে আপনাকে। এরপর দেখা যাবে পাখি।ভাগ্য ভালো থাকলে হর্নবিলেরও দেখা পেতে পারেন।আর গাইডই আপনাকে পরিচয় করিয়ে দেবে পাখির সঙ্গে। অপূর্ব তাদের রঙ। ডেকে যেন পাহাড়ের গল্প বলবে ওরা। তবে কোনওভাবেই ওদের বিরক্ত করবেন না। ওদের থাকতে দিন ওদের মতো করে। লাটপাঞ্চার ওদের স্বর্গরাজ্য। প্রায় ২০০ প্রজাতির পাখি আছে এখানে। মিনিভেট, ফ্যালকন, ঈগল, সানবার্ড সহ নানা প্রজাতির পাখি দেখতে পাওয়া যায় এখানে।

লাটপাঞ্চার থেকে অহলদারা ভিউ পয়েন্টে ঘুরে আসতে পারেন। সেখানে থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘার অপূর্ব দৃশ্য দেখা যায়। দিগন্ত বিস্তৃত শুধুই পাহাড়। উঁচু পাথরের উপর উঠে দাঁড়ান। অনুভব করতে পারবেন এই বিশ্ব চরাচরে কতটা ক্ষুদ্র আমরা। এখান থেকে যে অভিজ্ঞতা নিয়ে বাড়ি ফিরবেন তা মনে থাকবে অনেক অনেক দিন।

বন্ধ করুন