বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > NB Tour: টাইগার হিল তো অনেক হল, এবার ঝান্ডিদারা থেকে দেখুন সুর্যোদয়,মন ভরে যাবে
পুজোয় ঘুরে আসুন পাহাড়ে, মন ভরে যাবে। সংগৃহীত ছবি

NB Tour: টাইগার হিল তো অনেক হল, এবার ঝান্ডিদারা থেকে দেখুন সুর্যোদয়,মন ভরে যাবে

  • লোলেগাঁও বাস স্ট্যান্ড থেকে কাছেই আছে ঝুলন্ত ব্রিজ। চারপাশে ফার, বার্চ, ওক, সাইপ্রাসের বন। তার মাঝেই কাঠের ব্রিজ। দুপাশে সবুজের ছাউনি। সেই সবুজের মাঝে হারিয়ে ফেলতে পারেন নিজেকে। মন ভরে দেখুন প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য্যকে।

এবার পুজোয় একটু নিরিবিলি চাইছেন? ভিড়ভাট্টা ভালো লাগছে না। আপনার ঠিকানা হতেই পারে লোলেগাঁও। অনেকের কাছেই পরিচিত জায়গাটি। তবে এবার গেলে ঝান্ডিদারা ভিউ পয়েন্টে যেতে ভুলবেন না। টাইগার হিল তো অনেক হল, এবার ঝান্ডিদারা থেকে দেখুন সূর্যোদয়।

 এই একটা জায়গায় দাঁড়িয়ে আপনি ডুয়ার্স, দার্জিলিং, কালিম্পং, কাঞ্চনজঙ্ঘা, নাথুলা সবটাই দেখতে পাবেন। একেবারে মন ভালো করে দেওয়া ছবির মতো সুন্দর লোকেশন। চারপাশে সবুজ। আর সামনে তাকিয়ে দেখুন হিমালয়ের তুষার আবৃত শৃঙ্গ।আকাশ পরিষ্কার থাকলে এখান থেকেই দেখে নিতে পারবেন কাঞ্চনজঙ্ঘা আর মাউন্ট এভারেস্টকে।

দার্জিলিং থেকে এখানে আসতে চাইলে দূরত্ব পড়বে প্রায় ৭০ কিমি। তবে কালিম্পং থেকে কাছেই। মাত্র ৩১ কিমি দূরে ঝান্ডিদারা ভিউ পয়েন্ট।লাভা থেকে এই জায়গাটির ৫২ কিমি। হাতে একটু সময় নিয়ে আসবেন ঝান্ডিদারাতে। দুচোখ ভরে দেখুন রাজকীয় হিমালয়কে। টাইগার হিল থেকে সুর্যোদয় দেখার অভিজ্ঞতা অনেকের আছে। এবার ঝান্ডিদারা থেকে সূর্য ওঠা দেখুন। অন্যরকম অনুভূতি হবে।

লোলেগাঁও বাস স্ট্যান্ড থেকে কাছেই আছে ঝুলন্ত ব্রিজ। চারপাশে ফার, বার্চ, ওক, সাইপ্রাসের বন। তার মাঝেই কাঠের ব্রিজ। দুপাশে সবুজের ছাউনি। সেই সবুজের মাঝে হারিয়ে ফেলতে পারেন নিজেকে। মন ভরে দেখুন প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য্যকে।লোলেগাঁওয়ের ইকো পার্কের কাছে গ্রামীণ বাজার বসে। পাহাড়ের বাজার একেবারে অন্যরকম। টুকিটাকি জিনিসপত্র কিনে নিতেই পারেন এখান থেকে। 

লোলেগাঁওকে কেন্দ্র করে কাছাকাছি জায়গা বলতে পেডং, রিশপ, লাভা ঘুরে আসতে পারেন।পাখি দেখতে ভালোবাসেন। পাখির ছবি তোলার শখ রয়েছে। লোলেগাঁও থেকে কাছেই সামথার বলে একটা জায়গা আছে। ঘুরে আসতে পারেন।

কীভাবে যাবেন?

এনজেপি, বাগডোগরা এয়ারপোর্ট, কিংবা তেনজিং নোরগে বাস টার্মিনাস সংলগ্ন এলাকা থেকে গাড়িতে লোলেগাঁও যেতে পারেন। অথবা কালিম্পংয়ে গিয়ে সেখান থেকেও গাড়িতে যেতে পারেন লোলেগাঁও। থাকার জন্য একাধিক হোমস্টে রয়েছে। ভিড় এড়িয়ে দুদিনের থাকলে মন ভালো হবেই। 

 

বন্ধ করুন