বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > প্রবল বর্ষণের সম্ভাবনা দেখা দিল রাজ্যে, আজ নবান্ন জারি করল বিশেষ বুলেটিন
নবান্ন (‌ছবি সৌজন্য টুইটার)‌
নবান্ন (‌ছবি সৌজন্য টুইটার)‌

প্রবল বর্ষণের সম্ভাবনা দেখা দিল রাজ্যে, আজ নবান্ন জারি করল বিশেষ বুলেটিন

  • বঙ্গোপসাগরের নিম্নচাপ পিছু ছাড়ছে না। যার জেরে নতুন করে বৃষ্টি বাড়বে। ভাসতে পারে শহর থেকে জেলা।

সকাল থেকে বাদল হল ফুরিয়ে এলো বেলা—বাংলার এখন এই ছবি দেখা যাচ্ছে। কিন্তু তারপরও স্বস্তি নেই। কারণ বড় বিপর্যয়ের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। বঙ্গোপসাগরের নিম্নচাপ পিছু ছাড়ছে না। যার জেরে নতুন করে বৃষ্টি বাড়বে। ভাসতে পারে শহর থেকে জেলা। এই বিষয়ে নবান্ন থেকে জারি করা হয়েছে বিশেষ বুলেটিন। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাসের পরই নবান্ন থেকে হলুদ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। নবান্ন থেকে প্রকাশিত বুলেটিন অনুযায়ী, ২২ সেপ্টেম্বর, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২৬ সেপ্টেম্বর এবং ২৭ সেপ্টেম্বর মারাত্মক বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। নবান্নে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বুধবার মুখ্যসচিব জেলাশাসকদের নির্দেশ দেন ত্রাণ সামগ্রী তৈরি রাখার জন্য।

নবান্নের জারি করা বিশেষ বুলেটিন অনুযায়ী, আজ এবং ২৬–২৭ সেপ্টেম্বর রাজ্যজুড়ে হলুদ সতর্কতা জারি করা হযেছে। আগামী ৩০ তারিখ ভবানীপুরের উপনির্বাচন। তাই কলকাতার দিকটা খেয়াল রাখতে তৎপর রয়েছে নবান্ন। দক্ষিণবঙ্গের জেলাশাসকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যাতে উপকূলে বসবাসকারী মানুষদের দ্রুত নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, একটি ঘূর্ণাবর্ত আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর এবং আর একটি ২৮ সেপ্টেম্বর আসতে পারে। এক্ষেত্রে দ্বিতীয় ঘূর্ণাবর্তটি বেশি শক্তি নিয়ে আছড়ে পড়তে পারে। দুর্গাপুজোর মুখে জোড়া ঘূর্ণাবর্তই আসবে দক্ষিণ চিন সাগর থেকে। এই পূর্বাভাস মাথায় রেখেই নবান্ন বিশেষ বুলেটিন জারি করে সতর্কতা অবলম্বন করতে বলেছেন।

উল্লেখ্য, বুধবার দুপুরেই কলকাতা এবং তার পার্শ্ববর্তী জেলাগুলিতে ভারী বৃষ্টি শুরু হয়েছে। ফলে বানভাসী পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে। এই আশঙ্কা করেই আজ বৈঠক করেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। বাড়তি বৃষ্টি নিয়ে তাই সতর্কতা জারি করা হয়েছে। বুধবার দুপুর ১টায় নবান্নে বৈঠকে বসেন মুখ্যসচিব। সেখানেই তিনি নির্দেশ দেন অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বনের।

বন্ধ করুন