মালদহে ভাইরাল সেই ভিডিয়োর একটি স্থিরচিত্র
মালদহে ভাইরাল সেই ভিডিয়োর একটি স্থিরচিত্র

মালদায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবির পাশেই মঞ্চে উদ্দাম লাফালাফি স্বল্পবসনাদের

তৃণমূলের দাবি, ওই মঞ্চ তাদের নয়। স্থানীয় একটি ক্লাব ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করেছিল। প্রতি বছরই সেখানে মনোরঞ্জনের জন্য চিয়ার লিডারদের আনা হয়

তৃণমূলের মঞ্চে স্বল্পবসনা তরুণীদের লাফালাফির ভিডিয়ো ভাইরাল সোশ্যাল সাইটে। CAA ও NRC বিরোধী সেই সভার ১৪ সেকেন্ডের একটি ভিডিয়ো ক্লিপ পোস্ট করেছেন আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র। CAA, NRC-র বিরোধিতায় মালদার সামসিতে অবস্থানে বসেছিলেন তিনি। পোস্টে তিনি লিখেছেন, তৃণমূল কতটা নীচে নামতে পারে তার জ্বলন্ত নিদর্শন।

ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, মঞ্চে নানা কায়দায় লাফালাফি করছেন ২ তরুণী। মঞ্চের নীচে টাঙানো CAA ও NRC বিরোধী ফেস্টুন। তাতে জ্বলজ্বল করছে স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের মুখ। এদের মধ্যে আশরাফুল হক নামে এক তৃণমূল নেতা হরিশ্চন্দ্রপুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির স্বামী। একেবারে বাঁ দিকে রয়েছে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি।

তৃণমূলের দাবি, ওই মঞ্চ তাদের নয়। স্থানীয় একটি ক্লাব ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করেছিল। প্রতি বছরই সেখানে মনোরঞ্জনের জন্য চিয়ার লিডারদের আনা হয়। এবারও কলকাতা থেকে চিয়ারলিডার আনা হয়েছিল। বিশ্বনাথ ঝা মেমরিয়াল ট্রফি নামে ওই ট্যুর্নামেন্ট যে ক্লাব আয়োজন করে তার সভাপতি বুলবুল খানও তৃণমূল নেতা।

বুলবুল সাহেব জানিয়েছেন, ‘ওই অনুষ্ঠানে সাধারণ মানুষ ও পুলিশকর্মীরা হাজির ছিলেন। যা হয়েছে শালীনতার মাত্রার মধ্যেই হয়েছে। আর ওই ফেস্টুন সত্যিই বাঁধা হয়েছিল না কি কেউ ফটোশপ করেছে তা দেখতে হবে। পুলিশে অভিযোগ করেছি। আমার নামে কুৎসা করার জন্য বিরোধীরা একাজ করে থাকতে পারে।’



বন্ধ করুন