বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Offbeat Darjeeling: দার্জিলিংয়ের তিন সুন্দরীর ঠিকানা রইল, নির্জনতার এত রূপ!

Offbeat Darjeeling: দার্জিলিংয়ের তিন সুন্দরীর ঠিকানা রইল, নির্জনতার এত রূপ!

নির্জনতা যারা ভালোবাসেন তারা দার্জিলিংয়ের অফবিট জায়গাগুলোর খোঁজ করতে পারেন। সংগৃহীত ছবি। বিবেকানন্দ সরকার( পর্যটক) 

স্কুলের পরীক্ষা প্রায় শেষ। ভাবছেন কোথায় যাবেন? ঘুরে আসুন দার্জিলিংয়ের অফবিট জায়গাগুলোতে। তাকদা কিংবা তিনচুলে দার্জিলিং থেকে দেড় ঘণ্টা মতো সময় লাগে। সময় করে ঘুরে আসতে পারেন। যা নিয়ে ফিরবেন তা মনে থাকবে জীবনভর।

কথায় আছে বাঙালির বেড়ানো মানে দীপুদা। কিন্তু গরমকালে দিনের বেলা দীপু মানে বেজায় গরম। মানে দীঘা আর পুরী। বাকি রইল দার্জিলিং। তবে দার্জিলিং শহর দিনকে দিন ঘিঞ্জি হয়ে যাচ্ছে। এখন অনেকেই চাইছেন অফবিট দার্জিলিং। তেমনি তিনটি অফ বিট জায়গার সুলুক সন্ধান থাকল। ঘুরে আসতে পারেন। মন একেবারে ফুরফুরে হয়ে যাবে।

ধোত্রে

সান্দাকফু ট্রেকিং রুটেই পড়ে ধোত্রে। আর পাঁচটা পাহাড়ি গ্রাম যেমন হয় তেমনটাই। কিন্তু না, তাহলে ধোত্রে বেড়াতে যাবেন কেন? প্রথমত, এখান থেকে আপনি কাঞ্চনজঙ্ঘার ফুল ভিউ পাবেন। পাখি ভালবাসলে চলে যান ধোত্রে। ট্র্যাকিং এরও সুযোগ আছে। দার্জিলিং থেকে ধোত্রের দূরত্ব ৪৩ কিলোমিটার। এটি সিঙ্গালিলা ন্যাশনাল ফরেস্টের বাফার জোনের মধ্যে পড়ে। নাম না জানা হরেক পাখির দেখা পাবেন এখানে। নির্জনে, নিরিবিলিতে দিন কাটাতে যাদের ভালো লাগে তাদের কাছে ধোত্রে আদর্শ জায়গা।

মানেভঞ্জন পর্যন্ত এসে সেখান থেকে গাড়ি বদলেও ধোত্রে যাওয়া যায়। আবার সরাসরি এনজিপি ও বাগডোগরা থেকে গাড়িতে চলে আসতে পারেন ধোত্রে ।

তাকদা

আপনি যদি দার্জিলিংয়ে যাবেন অথচ সেখানকার ভিড় গায়ে মাখবেন না তবে সবথেকে ভালো ডেস্টিনেশন হতেই পারে তাকদা। ইংরেজ আমলে এটি ছিল ব্রিটিশদের ছুটি কাটানোর একটি জায়গা। অপরূপ রূপবতী তাকদা। সামনে অপার বিস্তৃত চা বাগান। তার পেছনেই পাহাড়ের চুড়ো। 

দার্জিলিং থেকে প্রায় ২৮ কিমি দূরে রয়েছে এই ছোট্ট পাহাড়ি গ্রাম। অনেকে বলেন, আসলে লেপচা শব্দ তুকদা থেকে এসেছে তাকদা শব্দটি। তার মানে কুয়াশা। বাস্তবিকই কুয়াশায় মোড়া নির্জন গ্রাম। কাছেই রয়েছে পুবাং চা বাগান। এখানে রয়েছে শতবর্ষপ্রাচীন ঝুলন্ত ব্রিজ। একটু এগোলেই দুরপিনদারা ভিউ পয়েন্ট। এখান থেকে আপনি দেখতে পাবেন তিস্তা নদীকে। 

ইংরেজ আমলের নানা কাঠামো দেখে টাইম মেশিনে কখন যে ইতিহাসের অলিগলিতে হারিয়ে যাবেন বুঝতেই পারবেন না। তাকদাতে একটা সময় অর্কিড চাষ হত। মাঝে তাতে ভাটা পড়ে। ফের সেটি নতুন করে শুরু হচ্ছে। এনজেপি থেকে সরাসরি গাড়িতে তাকদা আসা যায়।

তিনচুলে

তাকদা থেকে মাত্র তিন কিমি দূরে রয়েছে তিনচুলে। এখানে গেলে দুটি জিনিস মিস করবেন না। একটি হল বরফের মুকুট পরা কাঞ্চনজঙ্ঘা। আর অন্যটি হল কমলালেবুর বাগান। কাছেই রয়েছে পেশক ভিউ পয়েন্ট। দুপাশে চা বাগান। তার মধ্যে দিয়ে রাস্তা। তবে অনেকেই তিনচুলেতে না থেকে লামাহাটা চলে যান। তার গল্প তোলা রইল অন্য়দিনের জন্য।

তাকদা কিংবা তিনচুলে দার্জিলিং থেকে দেড় ঘণ্টা মতো সময় লাগে। সময় করে ঘুরে আসতে পারেন। যা নিয়ে ফিরবেন তা মনে থাকবে জীবনভর। 

বাংলার মুখ খবর
বন্ধ করুন

Latest News

গায়িকা প্রশ্মিতার সঙ্গে তৃতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে, কে ছিলেন অনুপমের প্রথম স্ত্রী? ‘গগনযান’-র জন্য এই ৪ মহাকাশচারীকে বেছে নিল ভারত, প্রথমবার মহাকাশে পাঠাবে মানুষ বউ ডোনার কোলে ছোট্ট সৌরভ! দাদাগিরি ১০ এ এমন অবাস্তব ঘটনা ঘটল কীভাবে? বন দফতরের বিট অফিসারকে আটকে রাখল গ্রামবাসীরা, গজরাজের হানায় মৃত্যুর জের প্রায় এক বছর পরে ১৬ জনকে গ্রেফতার করল এনআইএ, রামনবমীতে হিংসার জের টেস্টের সেরা ১১-য় অনিশ্চিত জেনেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেন কিউয়ি পেসার মুম্বই গিয়ে ডেটিং অ্যাপের ফাঁদে প্রিয়াঙ্কা! দিদি নম্বর ওয়ানে এসে বললেন কী? সফল হয়েছে গোড়ালির অস্ত্রোপচার, হাসপাতালের বিছানায় শুয়েই নিজেই আপডেট দিলেন শামি কলকাতায় একসময় পড়াশোনা করতেন, থাকতেন, ফের একবার এই শহরে ফিরলেন বিদ্যুৎ জামওয়াল দ্বিতীয় ইনিংসে কঠিন সময়ে ধ্রুব জুরেলকে কী উপদেশ দিয়েছিলেন, খোলসা করলেন শুভমন

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.