বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > টিকার লাইনে দাঁড়াতে লাগবে ৫০০ টাকার কুপন, জলপাইগুড়ি হাসপাতালে রমরমা দালালদের!
টিকার লাইনে দাঁড়াতে লাগবে ৫০০ টাকার কুপন, জলপাইগুড়ি হাসপাতালে রমরমা দালালদের! (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
টিকার লাইনে দাঁড়াতে লাগবে ৫০০ টাকার কুপন, জলপাইগুড়ি হাসপাতালে রমরমা দালালদের! (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

টিকার লাইনে দাঁড়াতে লাগবে ৫০০ টাকার কুপন, জলপাইগুড়ি হাসপাতালে রমরমা দালালদের!

দালাল চক্র সক্রিয় জলপাইগুড়ি জেলা হাসপাতালে

আমজনতাকে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দিচ্ছে রাজ্য। টিকা নিতে গেলে লাইনে দাঁড়াতে হবে টিকাপ্রার্থীদের। আর লাইন দিতে গেলে লাগবে কুপন। দালাল চক্রের হাতে পড়া সেই কুপন কিনতে সেই আমজনতার থেকেই খস‌ছে ৫০০ টাকা! বুধবার এমনই অভিযোগে সরব হলেন জলপাইগুড়ি জেলা হাসপাতালে টিকা নিতে আসা টিকাপ্রার্থীরা। ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে তাঁরা জেলার উপ-মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিককে ঘিরে ধরে বিক্ষাভ দেখাতে থাকেন।

টিকা নেওয়ার লাইনের কুপনে দালাল চক্র সক্রিয়তার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন জেলার উপ-মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক। তাঁর বক্তব্য, ‘নিয়ম মেনেই কাজ করা হয়েছে। যাঁরা লাইনে ছিলেন তাদেরকেই টিকার জন্য কুপন দেওয়া হয়েছে। কুপন নিয়ে দালাল চক্র সক্রিয়। তাঁরাই লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে টোকন নিয়ে তা টাকার বিনিময়ে বিক্রি করে দিচ্ছে। দালালরাই গন্ডগোল পাকানোর চেষ্টা করেছে।’

জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, কারা ওই দালাল চক্রের সঙ্গ যুক্ত রয়েছে, তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে তারা। জলপাইগুড়ির জেলা হাসপাতালের টিকাকেন্দ্র নিয়মিত ৪০০ জনকে টিকা দেওয়া হচ্ছে। বিশৃঙ্খলা এড়াতে লাইনে দাঁড়ানো প্রথম ৪০০ জনকে কুপন দেওয়া হচ্ছে। অভিযোগ, এই কুপন ব্যাবস্থার মধ্যেই মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে দালাল রাজ।

দালালরা কীভাবে রমরমিয়ে এই কারবার চালাচ্ছে ?‌ নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক টিকাপ্রার্থীদের অভিযোগ, প্রথমে বেশ কয়েকটি দলে ভাগ হয়ে অন্যান্য টিকাপ্রার্থীদের সঙ্গে মিশে যাচ্ছে দালালরা। তারপর চুপিসাড়ে লাইনে দাঁড়িয়ে পড়ছে তারা। ভিড়ের মধ্যে এমনভাবে মিশে যাচ্ছে যে, খালি চোখে দেখলে, সাধারণত কাউকে চেনার উপায় থাকছে না। তার পর লাইন অনুয়ায়ী গিয়ে ভুয়ো নাম লিখিয়ে কুপন তুলে নিচ্ছে চক্রের চাঁইরা। এভাবেই কুপন তুলে তা চড়া দামে বিক্রি করার অভিযোগ উঠছে জলপাইগুড়ি হাসপাতাল চত্বরে থাকা দালাল চক্রের বিরুদ্ধে।

বন্ধ করুন