বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > শ্রমিকরা একশো দিনের কাজ করছেন তো! নিশ্চিত করার জন্য দিতে হবে দিনে ২ বার ছবি
শ্রমিকরা একশো দিনের কাজ করছেন তো? নিশ্চিত করতে দিতে হবে দিনে ২ বার ছবি। প্রতীকী ছবি।
শ্রমিকরা একশো দিনের কাজ করছেন তো? নিশ্চিত করতে দিতে হবে দিনে ২ বার ছবি। প্রতীকী ছবি।

শ্রমিকরা একশো দিনের কাজ করছেন তো! নিশ্চিত করার জন্য দিতে হবে দিনে ২ বার ছবি

  • কর্মরত শ্রমিকদের ছবি নির্দিষ্ট অ্যাপে দু'বার আপলোড করতে হবে।

১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ নতুন কিছু নয়। এক্ষেত্রে প্রায়ই অভিযোগ ওঠে যে কর্মীরা কাজ না করে মজুরি পেয়ে যাচ্ছেন। সেই কথা মাথায় রেখে এবার ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে আরও কিছুটা কড়া নিয়ম নিয়ে এল রাজ্য সরকার। আগে নির্দিষ্ট অ্যাপে কর্মরত শ্রমিকদের ছবি একবার আপলোড করলেই হত। কিন্তু, এবার থেকে দুবার কর্মরত শ্রমিকদের ছবি নির্দিষ্ট অ্যাপে আপলোড করতে হবে। যার মধ্যে কাজ শুরু হওয়ার সময় একটি ছবি এবং কাজ শেষ হওয়ার আগে আরেকটি ছবি আপলোড করতে হবে। অর্থাৎ শ্রমিকরা যে কাজ করছেন তার প্রমাণ হিসেবে দুবার ছবি আপলোড করতে হবে নির্দিষ্ট অ্যাপে। তবেই কাজের জন্য মজুরি পাবেন শ্রমিকরা।

সরকারি নতুন নিয়ম লাগু হয়েছে চলতি ডিসেম্বর থেকেই। ইতিমধ্যেই সমস্ত জেলায় এই নির্দেশিকা পাঠিয়ে দিয়েছে রাজ্য সরকার। প্রশাসন সূত্রে জানা যাচ্ছে, ১০০ দিনের প্রকল্পে দুর্নীতি এড়াতে এই ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। তাদের মতে, অনেকক্ষেত্রেই শ্রমিকরা সশরীরে কাজ করেন না। তারা হাজিরা দিয়েই চলে যান। আর মজুরি পেয়ে যান। এই ধরনের একাধিক অভিযোগ পেয়েছে নবান্ন। সেই কারণেই রাজ্য সরকার নয়া নির্দেশ জারি করেছে। প্রশাসনিক আধিকারিকদের মতে, এর ফলে দুর্নীতি কিছুটা এড়ানো সম্ভব হবে।

পশ্চিম মেদিনীপুরে ইতিমধ্যেই এই নির্দেশিকা পৌঁছে গিয়েছে। জেলার প্রকল্প আধিকারিক বিজয় সরকার বলেছেন, 'আগে কর্মরত শ্রমিকদের একবার ছবি পাঠাতে হত। তবে নতুন নিয়মে দুবার করে ছবি পাঠাতে হবে। নির্দেশ মেনেই পদক্ষেপ করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

নতুন নির্দেশিকা চলে এসেছে পুরুলিয়াতেও। জেলার পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দফতরের আধিকারিক বলেন, কাজ শুরু হওয়ার সময় সকাল ১১ টায় এবং কাজ শেষ হওয়ার সময় দুপুর ২ টোর সময় কর্মরত শ্রমিকদের ছবি তুলে পাঁচটার মধ্যে নির্দিষ্ট অ্যাপে আপলোড করতে হবে। তবে গ্রাম্য এলাকায় বেশ কিছু জায়গায় নেটওয়ার্কের সমস্যা থাকায় ছবি আপলোড করতে দেরি হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, ১০০ দিনের কাজের প্রকল্প শুরু হয়েছে ২০০৫ সাল থেকে। দেশজুড়ে মানুষের আয়ের ব্যবস্থা করার জন্য এই প্রকল্প চালু হয়েছিল। তারপরে থেকে প্রকল্পে কাজ না করেই টাকা পেয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠছিল অনেকের বিরুদ্ধে।

তবে, নতুন নিয়মের বিরোধিতা করছেন মহিলা শ্রমিকদের একাংশ। তাদের বক্তব্য, অনেক ক্ষেত্রেই তারা সকাল পাঁচটা, ছটা থেকে কাজ শুরু করেন এবং ১১ টার মধ্যেই তাদের কাজ শেষ হয়ে যায়। কিন্তু, ২ টো পর্যন্ত তাদের কাজ করতে হলে সেক্ষেত্রে সংসারের কাজ সামলাতে গিয়ে সমস্যায় পড়বেন।

বন্ধ করুন