বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আবাসের টাকা গিয়েছে তৃণমূল নেতার অ্যাকাউন্টে, পঞ্চায়েত দফতরে সংসার পাতলেন দম্পতি

আবাসের টাকা গিয়েছে তৃণমূল নেতার অ্যাকাউন্টে, পঞ্চায়েত দফতরে সংসার পাতলেন দম্পতি

শিলদা পঞ্চায়েত দফতরে গেরস্থালি সামলাচ্ছেন মিনতিদেবী।

শিলদা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা মণিকাঞ্চন দত্ত বুধবার সকালে স্ত্রী মিনতি দেবীকে নিয়ে পঞ্চায়েত অফিসে হাজির হন। সঙ্গে ছিল গ্যাস ওভেন ও সিলিন্ডারসহ গেরস্থালির হরেক মালপত্তর।

আবাস যোজনার তালিকায় নাম উঠেছিল। কিন্তু টাকা ঢুকেছে স্থানীয় বুথ সভাপতি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে। ফলে বাড়ি করতে পারেননি আসল উপভোক্তা। প্রতিবাদে এবার পঞ্চায়েত দফতরে সংসার পাতলেন তিনি। ঘটনা ঝাড়গ্রামের শিলদায়। ঘটনার দায় এড়ানোর খেলায় নেমেছে স্থানীয় তৃণমূল।

শিলদা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা মণিকাঞ্চন দত্ত বুধবার সকালে স্ত্রী মিনতি দেবীকে নিয়ে পঞ্চায়েত অফিসে হাজির হন। সঙ্গে ছিল গ্যাস ওভেন ও সিলিন্ডারসহ গেরস্থালির হরেক মালপত্তর। পঞ্চায়েত অফিসের দরজার পাশে গ্যাস ওভেন পাতেন মণিকাঞ্জনবাবু। স্ত্রী মিনতিদেবী তাতে রান্না চড়িয়ে দেন। খবর পেয়ে সেখানে হাজির হন প্রশাসনিক কর্তারা। তাঁদের আশ্বাসে বাড়ি ফেরেন দম্পতি।

মিনতিদেবী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ২০১৮ সালে আমার স্বামীর নাম আবাস যোজনার তালিকায় এসেছিল। কিন্তু সেই টাকা চলে যায় বুথ সভাপতি পঞ্চানন দত্তের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে। ফলে আমরা বাড়ি করতে পারিনি। আমাদের টাকা ফেরত চাই। নইলে আমরা পঞ্চায়েত দফতরেই সংসার পাতব।

এই ঘটনায় দায় এড়ানোর খেলা শুরু হয়েছে তৃণমূলের তরফে। স্থানীয় অঞ্চল সভাপতি কমল শীট বলেন, আমি এরকম কোনও ঘটনা জানি না। আমি সবেমাত্র অঞ্চল সভাপতি হয়েছি। কারও টাকা অন্য কারও অ্যাকাউন্টে গিয়ে থাকলে তা ফেরত দিয়ে দেওয়া উচিত।

 

বন্ধ করুন