বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Alcohol smuggling: উৎসবের মরশুমে বাংলা থেকে বিহারে মদ পাচার করছেন মহিলারা! ধরল গ্রামবাসীরা

Alcohol smuggling: উৎসবের মরশুমে বাংলা থেকে বিহারে মদ পাচার করছেন মহিলারা! ধরল গ্রামবাসীরা

এই অটোতে করে মদ পাচার করা হচ্ছিল। নিজস্ব ছবি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আজ ষষ্ঠীর দিনে একটি অটো করে যাচ্ছিলেন ওই মহিলা পাচারকারীরা। তাদের কাছে থাকা ব্যাগ দেখে সন্দেহ হয় গ্রামবাসীদের। তারাই অটো দাঁড় করিয়ে তল্লাশি চালায়। আর তারপরেই ব্যাগ থেকে বেরিয়ে আসে প্রচুর দেশি ও বিলেতি মদ।

উৎসবের মরশুমে বরাবরই মদের ব্যাপক চাহিদা থাকে। সেই চাহিদার সুযোগে বাংলা থেকে বিহারে রমরমিয়ে চলছে দেশি এবং বিলেতি মদের পাচার। আর সেই কাজ করছেন মহিলা পাচারকারীরা। পুলিশের চোখে ধুলো দিতে মহিলাদের বেছে নিচ্ছে পাচারকারীরা। এভাবে মদ পাচার করতে গিয়ে মহিলাদের ধরে ফেললেন গ্রামবাসীরা। তাদের কাছ থেকে প্রচুর পরিমাণে মদ উদ্ধার হয়েছে। পরে ওই মহিলাদের পুলিশের হাতে তুলে দেন গ্রামবাসীরা। মহিলারা যেভাবে মদপাচার করছে তা দেখে তাজ্জব গ্রামবাসীরা। ঘটনাটি ঘটেছে মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার সুলতানপুর গ্রামে।

দুধের ড্রামে মদের কৌটা পাচার, ধরে ফেলল পুলিশ

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আজ ষষ্ঠীর দিনে একটি অটো করে যাচ্ছিলেন ওই মহিলা পাচারকারীরা। তাদের কাছে থাকা ব্যাগ দেখে সন্দেহ হয় গ্রামবাসীদের। তারাই অটো দাঁড় করিয়ে তল্লাশি চালায়। আর তারপরেই ব্যাগ থেকে বেরিয়ে আসে প্রচুর দেশি ও বিলেতি মদ। গ্রামবাসীরা মহিলাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে জানতে পারেন সেই মদ বিহারে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। পরে তাদের হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃতদের নাম বিরমা মুসোমত, সলিতা দেবী, প্রীতি দেবী এবং অটো চালক মনোজ কুমার যাদব। প্রত্যেকেরই বাড়ি বিহারের কাটিহার জেলার মিরচাই এলাকায়। উদ্ধার হওয়া প্রায় কয়েকশো বোতল মদ বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। ধৃতদের আজ চাঁচল মহকুমা আদালতে পেশ করা হয়। হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ জানিয়েছে সমগ্র ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দা আরজাউল করিম বলেন, ‘অটো করে বিহারে মদ নিয়ে যাচ্ছিল। মাঝে মাঝেই এই ভাবে বিহারে মদ পাচার করা হয়। আমরা গ্রামবাসীরা পাকড়াও করে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছি। আমরা চাই এইভাবে অবৈধ পাচার বন্ধ হোক সমাজ সুস্থ থাকুক।’ যদিও ধৃত অটো চালক রমেশ কুমারের দাবি, তিনি এই পাচারের ঘটনার সঙ্গে জড়িত নন।

বন্ধ করুন