বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বাঁকুড়া থেকে অন্ডাল, চরকি পাক খেয়েছে ট্রাক! পুলিশের অভিযানে বড় চক্রের খোঁজ
ভোজ্য তেল চুরির বড় চক্রের হদিশ পেল পুলিশ। প্রতীকী ছবি, সৌজন্যে হিন্দুস্তান টাইমস) (HT_PRINT)

বাঁকুড়া থেকে অন্ডাল, চরকি পাক খেয়েছে ট্রাক! পুলিশের অভিযানে বড় চক্রের খোঁজ

  • পুলিশ সূত্রে খবর, তমলুক থেকে তেলভর্তি গাড়ি চালিয়ে ধূলাগড় পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে কলকাতা হয়ে বাঁকুড়ার দিতে ট্রাকটি নিয়ে যাওয়া হয়।

গোপন সূত্রে খবর পেয়েছিল পুলিশ। এরপর নজরদারি শুরু। আর তার ফলও মিলল হাতে নাতে। ভোজ্য তেল ছিনতাই কাণ্ডে বড় সাফল্য পেল পূর্ব মেদিনীপুর জেলা পুলিশ। গত ২৮শে ফেব্রুয়ারি তমলুক শহর থেকে সোয়াবিন তেল ভর্তি ট্রাক চুরি হয়েছিল। সেই ট্রাকে অন্তত ১৩০০ তেল ভর্তি টিন ছিল। আর সেই ট্রাক সহ টিন নিয়ে চম্পট দিয়েছিল দুষ্কৃতীরা। এবার সেই ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করল তমলুক থানার পুলিশ। সব মিলিয়ে ৬৪০টি তেল ভর্তি টিন উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, তমলুক থেকে তেলভর্তি গাড়ি চালিয়ে ধূলাগড় পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে কলকাতা হয়ে বাঁকুড়ার দিতে ট্রাকটি নিয়ে যাওয়া হয়। এদিকে এরপর চোরাই তেলগুলি বিক্রির ছক কষে দুষ্কৃতীরা। বাঁকুড়ার বাঁকদহ গ্রামে কয়েকটি ভোজ্য তেলের টিন নামানো হয়। এদিকে অন্ডাল থানার অন্তর্গত উখরার একটি দোকানেও প্রায় দেড়শ তেলের টিন বিক্রি করা হয়। পুলিশ ইতিমধ্যেই কিছু তেলের টিন উদ্ধার করেছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, এই লরির খালাসি রাজেশ ঘোষ ওরফে লাল্টু। সে এই চক্রের অন্যতম বড় মাথা। তমলুক শহরের পদুমবসান এলাকায় অন্যতম মূল অভিযুক্তের বাড়ি। ধৃতদের মধ্যে অপর তিনজন বাঁকুড়া জেলার শুশুনিয়া গ্রামে সন্তু মুখোপাধ্য়ায়, পশ্চিম মেদিনীপুরের খড়গপুরের শেখ রাজেশ ও কাঁথির শেখ কামু। মূলত চোরাই তেল বিক্রির জন্য তারা পরিচিত জায়গাতেই ট্রাকটিকে নিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না।

 

বন্ধ করুন