বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আইপিএস পরিচয় দিয়ে মদ্যপ বন্ধুকে ছাড়াতে থানায় যুবক, পর্দা ফাঁস হতেই গ্রেফতার
আইপিএস পরিচয় দিয়ে মদ্যপ বন্ধুকে ছাড়াতে থানায় যুবক, পর্দা ফাঁস হতেই গ্রেফতার।(প্রতীকী ছবি) (HT_PRINT)

আইপিএস পরিচয় দিয়ে মদ্যপ বন্ধুকে ছাড়াতে থানায় যুবক, পর্দা ফাঁস হতেই গ্রেফতার

  • ধৃতের নাম নরেশ কুমার। শুক্রবার হাওড়া থানার পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

ভুয়ো আইপিএস সেজে ধৃত সঙ্গীকে ছাড়াতে গিয়ে পুলিশের কাছে ধরা পড়লেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর প্রাক্তন জওয়ান। ধৃতের নাম নরেশ কুমার। শুক্রবার হাওড়া থানার পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। আজ শনিবার দু'জনকে হাওড়া আদালতে তোলা হলে পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক।

পুলিশ সূত্রে জানা যাচ্ছে, গতকাল শুক্রবার প্রথমে এক যুবককে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। ওই যুবকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অসামাজিক কাজকর্মের অভিযোগ রয়েছে। তাদের কাছ থেকে পাওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তারপরেই থানায় আবির্ভাব ঘটে আইপিএস নরেশ কুমারের। পুলিশ জানাচ্ছে, থানায় গিয়ে নিজেকে ২০১৪ ব্যাচের আইপিএস বলে দাবি করেছিলেন নরেশ। এরপরে মদ্যপ যুবককে ছেড়ে দেওয়ার জন্য তিনি নির্দেশ দেন। একজন আইপিএস স্বয়ং নিজেই থানায় আসার কারণে পুলিশের পক্ষ থেকে প্রথমে কিছুটা খাতির যত্নও করা হয় নরেশের। কিন্তু, সেই খাতির-যত্ন বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। তার সঙ্গে কথোপকথনে সন্দেহ হয় বড় বাবুর। সম্প্রতি ভুয়ো ডাক্তার, সিবিআই অফিসার থেকে শুরু করে আরও ভুয়ো আধিকারিকের বিষয় প্রকাশ্যে এসেছে। তাতেই বড়বাবুর সন্দেহ আরও বেড়ে যায়।

সন্দেহের বশে বড়বাবু নরেশের কাছে তার নথিপত্র এবং পরিচয় পত্র দেখতে চাইলে তা তিনি দেখাতে পারেননি। এর পরেই তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তিনি যে সেনাবাহিনীতে ছিলেন তা জিজ্ঞাসাবাদে প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছে পুলিশ। তবে তিনি আদৌও সেনাবাহিনীতে ছিলেন কিনা তা নিয়েও সন্দেহ রয়েছে পুলিশের। সেই কারণে এদিন আদালতে তোলে তার পুলিশ হেফাজতের আবেদন জানানো হয়।

বন্ধ করুন