বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > অনগ্রসর সম্প্রদায়ের ছাত্র-ছাত্রীদের স্কলারশিপের টাকা আত্মসাৎ, গ্রেফতার মূলচক্রী
ভুয়ো স্কলারশিপকাণ্ডে ধৃত মাহাতাবুদ্দিন। নিজস্ব ছবি।
ভুয়ো স্কলারশিপকাণ্ডে ধৃত মাহাতাবুদ্দিন। নিজস্ব ছবি।

অনগ্রসর সম্প্রদায়ের ছাত্র-ছাত্রীদের স্কলারশিপের টাকা আত্মসাৎ, গ্রেফতার মূলচক্রী

  • পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মাহাতাবের বেশ কয়েকটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট রয়েছে। ভুয়ো আবেদনের মাধ্যমে স্কলারশিপের টাকা সমস্ত অ্যাকাউন্টে জমা করা হত।

উত্তর দিনাজপুরে অনগ্রসর সম্প্রদায়ের ছাত্র-ছাত্রীদের স্কলারশিপের টাকা ভুয়ো আবেদনের মাধ্যমে তুলে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। সেই ঘটনায় মূলচক্রীকে গ্রেফতার করল করণদিঘি থানার পুলিশ। ধৃতের নাম মাহাতাবুদ্দিন। করণদিঘির সাবধান এলাকার বাড়ি থেকে পুলিশ মাহাতাবুদ্দিনকে গ্রেফতার করে। ভুয়ো আবেদনের মাধ্যমে এখনও পর্যন্ত এসসি, এসটি ও ওবিসি সম্প্রদায়ের ছাত্র ছাত্রীদের কাস্ট সার্টিফিকেট ব্যাবহার করে তাদের স্কলারশিপের প্রচুর পরিমাণে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে মাহাতাবুদ্দিনের বিরুদ্ধে।

মাহাতাব সহ আরও বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে ভুয়ো আবেদনের মাধ্যমে স্কলারশিপের টাকা তুলে নেওয়া অভিযোগ তুলেছিলেন স্থানীয়রা। এর পাশাপশি ঘটনার প্রকৃত তদন্ত ও দোষীদের শাস্তির দাবিতে শুক্রবার উত্তর দিনাজপুরের জেলা শাসকের কাছেও লিখিত অভিযোগ জানিয়েছিলেন এলাকাবাসীরা। মাহাতাব ছাড়াও হায়াত আলি, হুমাউন কবির, সারজাহান আলি সহ একাধিক ব্যক্তি এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ পাওয়ার পরেই করণদিঘি থানার পুলিশ মাহাতাবুদ্দিনকে তার বাড়ি থেকেই গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে প্রতারণা, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রসহ একাধিক ধারায় মামলা মামলা রুজু করেছে পুলিশ। আজ ধৃতকে ইসলামপুর আদালতে পেশ করে ১৪ দিনের জন্য পুলিশি হেফাজত চাওয়া হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মাহাতাবের বেশ কয়েকটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট রয়েছে। ভুয়ো আবেদনের মাধ্যমে স্কলারশিপের টাকা সমস্ত অ্যাকাউন্টে জমা করা হত। যদিও এই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছে মাহাতাব। নিজেকে ব্যবসায়ী বলে দাবি করেছে মাহাতাব। তার দাবি, রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে তাকে ফাঁসানো হয়েছে। তিনি নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেন। মাহাতাবের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছিলেন রুস্তম আলি নামে এক স্থানীয় বাসিন্দা। তার পাল্টা দাবি, মাহাতাবই এই ঘটনায় মূল অভিযুক্ত। আরও যে সমস্ত অভিযোগ করা হয়েছে তাদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন তিনি।

বন্ধ করুন