বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Murder: পাট চুরি ঠেকাতে মাঠে গিয়েছিলেন কৃষক, সকালে মিলল রক্তাক্ত মৃতদেহ, খুনের অভিযোগ পরিবারের

Murder: পাট চুরি ঠেকাতে মাঠে গিয়েছিলেন কৃষক, সকালে মিলল রক্তাক্ত মৃতদেহ, খুনের অভিযোগ পরিবারের

ঘটনার পর এলাকায় পুলিশ। নিজস্ব ছবি।

মহম্মদ ফিরোজ বিহারের কিশানগঞ্জের টিপ্পিঝাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা। আজ সকালে রামগঞ্জ ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত সংলগ্ন বিহারের কিশানগঞ্জ জেলার পোঠিয়ার ভাতকুন্ডা এলাকায় পানসী রোডের পাশে মাঠের মধ্যে রক্তাক্ত অবস্থায় ওই ব্যক্তির মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা।

পাটকাঠি চুরি রুখতে রাতে গিয়েছিলেন কৃষক। সকাল হতেই উদ্ধার হল তার রক্তাক্ত মৃতদেহ। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। ঘটনাটি উত্তর দিনাজপুর জেলার ইসলামপুরের রামগঞ্জ ২ গ্রাম পঞ্চায়েত সংলগ্ন বাংলা বিহার সীমান্ত এলাকার। মৃত কৃষকের নাম মহম্মদ ফিরোজ। যেভাবে কৃষকের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে তাতে ওই কৃষককে খুন করা হয়েছে বলেই প্রাথমিক অনুমান পুলিশের। তার শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন মিলেছে।

পুলিশ এবং স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মহম্মদ ফিরোজ বিহারের কিশানগঞ্জের টিপ্পিঝাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা। আজ সকালে রামগঞ্জ ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত সংলগ্ন বিহারের কিশানগঞ্জ জেলার পোঠিয়ার ভাতকুন্ডা এলাকায় পানসী রোডের পাশে মাঠের মধ্যে রক্তাক্ত অবস্থায় ওই ব্যক্তির মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা। ওই মাঠটি বাংলা এবং বিহার সীমান্তে অবস্থিত।

পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, কয়েকদিন ধরেই তার জমি থেকে পাটকাঠি চুরি হয়ে যাচ্ছিল। তাই চোর ধরতে তিনি শুক্রবার রাতে জমিতে যান। কিন্তু রাত পেরিয়ে গেলেও বাড়ি ফিরে আসেনি তিনি। এরপরই পরিবারের লোকজন খোঁজ শুরু করলে এলাকার একটি মাঠে ওই কৃষকের রক্তাক্ত দেহ পড়ে থাকতে দেখেন। ঘটনাকে ঘিরে শোরগোল পড়ে যায় এলাকাজুড়ে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিহারের পোঠিয়া থানার পুলিশ। তারা মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। ঘটনায় পুলিশের কাছে খুব অভিযোগ দায়ের করেছে মৃতের পরিবার। যদিও কীভাবে এই ঘটনা ঘটল তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। ঘটনায় দোষীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবীতে সরব হয়েছেন এলাকাবাসীরা।

বন্ধ করুন