বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Green city mission: গ্রিন সিটি মিশনে দুর্নীতি নিয়ে শিশির অধিকারীর বড় ছেলে ও বৌমাকে তলব পুলিশের
কাঁথি থানা। ফাইল ছবি।

Green city mission: গ্রিন সিটি মিশনে দুর্নীতি নিয়ে শিশির অধিকারীর বড় ছেলে ও বৌমাকে তলব পুলিশের

  •  বিধানসভা নির্বাচনের আগেই শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগ দেন। তারপর থেকেই কাঁথি পুরসভায় গ্রিন সিটি মিশন প্রকল্পে দুর্নীতি নিয়ে তৎপর হয় রাজ্য। সে ক্ষেত্রে বরাবরই শুভেন্দু অধিকারী অভিযোগ জানিয়ে আসছিলেন, তিনি বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ফলেই প্রতিহিংসামূলক ভাবে এই অভিযোগ তোলা হয়েছে।

একদিকে যেমন এসএসসি, টেট দুর্নীতি ভোট পরবর্তী হিংসা প্রভৃতি নিয়ে তৎপর সিবিআই তখন কাঁথি পুরসভার গ্রিন সিটি মিশনে দুর্নীতি নিয়ে তৎপর রাজ্য পুলিশ। গ্রিন সিটি মিশনে দুর্নীতি নিয়ে এবার সাক্ষী হিসেবে কাঁথি থানার পুলিশ ডেকে পাঠাল শিশির অধিকারীর বড় ছেলে কৃষ্ণেন্দু অধিকারী এবং ছোট ছেলে দিব্যেন্দু অধিকারীর স্ত্রী সুতপা অধিকারীকে। আজ মঙ্গলবার তাদের কাঁথি থানায় ডেকে পাঠানো হয়েছে।

গতকাল তাদের বাড়ি করকুলির শান্তিগঞ্জে যায় কাঁথি থানার পুলিশ। সেখানে গিয়ে নোটিশ দিয়ে আসে পুলিশ। সুতপা অধিকারীর ক্ষেত্রে জানানো হয়েছে, তিনি চাইলে থানায় যেতে পারেন অথবা মহিলা পুলিশ কর্মী গিয়ে তার বাড়িতেই জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারে। সে ক্ষেত্রে তিনি যেখানে চান সেখানেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। গ্রিন সিটি মিশনে দুর্নীতি নিয়ে তারা আর্থিক তছরুপের সঙ্গে জড়িত আছে কিনা সে বিষয়টি খতিয়ে দেখবে পুলিশ। দু'জনকেই ১৬০ নোটিশ পাঠানো হয়েছে। উল্লেখ্য, শহরকে সৌন্দর্যায়নের জন্য পুরসভাকে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছিল। সেই টাকা তছরুপ করা হয়েছিল বলে অভিযোগ উঠেছিল। এর ভিত্তিতে গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর জেলাশাসকের নির্দেশে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছিল। সেই কমিটিতে রয়েছেন জেলা অতিরিক্ত জেলা শাসক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সহ অন্যান্য আধিকারিকরা।

এই মামলায় ইতিমধ্যেই বেশ কিছু নথি সংগ্রহ করেছে এই কমিটি। কাঁথি পুরসভার ইঞ্জিনিয়ার দিলীপ চুয়ানকে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছিল পুলিশ। যদিও বর্তমানে তিনি জামিনে রয়েছেন। এছাড়াও আরও বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে কাঁথি পুলিশ। পুরসভার তৎকালীন নির্বাহী কর্মকর্তা সমীর দে-কেও পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। প্রসঙ্গত, রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের আগেই শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগ দেন। তারপর থেকেই কাঁথি পুরসভায় গ্রিন সিটি মিশন প্রকল্পে দুর্নীতি নিয়ে তৎপর হয় রাজ্য। সে ক্ষেত্রে বরাবরই শুভেন্দু অধিকারী অভিযোগ জানিয়ে আসছিলেন, তিনি বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ফলেই প্রতিহিংসামূলক ভাবে এই অভিযোগ তোলা হয়েছে।

বন্ধ করুন