বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > 'লম্পট, নেশাখোর, কল্যাণের থেকে মুক্তি দাও মা' নীল সাদা ব্যানার ডোমজুড়ে
তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্য়োপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে পোস্টার।

'লম্পট, নেশাখোর, কল্যাণের থেকে মুক্তি দাও মা' নীল সাদা ব্যানার ডোমজুড়ে

  • প্রশ্ন উঠছে দলীয় সাংসদের বিরুদ্ধে কারা পোস্টার দিল?

তৃণমূলের অন্দরে কল্যাণপর্ব এখনও অব্যাহত। এবার হাওড়ার ডোমজুড়ে বাঁকড়া ১ ও ২ নম্বর পঞ্চায়েত এলাকায় হাওড়া-আমতা রোডের ধারেই ফুটপাতের উপরে তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ব্যানার। নীল সাদা সেই পোস্টারে লেখা রয়েছে, 'আর নয় কল্যাণ, আর নয় কল্যাণ। অকল্যাণের থেকে মুক্তি চাই। চরিত্রহীন, লম্পট, নেশাখোর, তোলাবাজ কল্যাণ ব্যানার্জির থেকে আমাদের মুক্তি দাও মা।' কিন্তু প্রশ্ন উঠছে দলীয় সাংসদের বিরুদ্ধে কারা পোস্টার দিল? 

দল সূত্রে খবর, ডোমজুড় এলাকাটি শ্রীরামপুরের তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের নির্বাচনী এলাকার মধ্যে পড়ে। সেই নিজের সাংসদ এলাকাতেই এধরনের পোস্টারকে কেন্দ্র করে স্বাভাবিকভাবেই শোরগোল পড়েছে। অন্যদিকে প্রাক্তন মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়েরও এই এলাকায় প্রভাব কিছুটা রয়েছে। এদিকে দলের অন্দরে কল্যাণ বিরোধী গোষ্ঠীর লোকজন তথা যুব তৃণমূলের একাংশ এই পোস্টার কাণ্ডের পেছনে থাকতে পারে বলেও মনে করছেন অনেকে। এর আগে রিষড়াতেও কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে একাধিক পোস্টার পড়েছিল। 

এদিকে ঘটনার সূত্রপাত কয়েকদিন আগে। তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি বক্তব্য সম্পর্কে সম্প্রতি বিস্ফোরক মন্তব্য করেছিলেন সাংসদ। তার পালটা জবাব দিয়েছিলেন কুণাল ঘোষ। এনিয়ে তরজা চলছিল। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সম্প্রতি জানিয়েছিলেন, আমার ব্যক্তিগত মত আগামী ২ মাস সব ধরনের জমায়েত বন্ধ থাকা দরকার। তার প্রেক্ষিতে কল্যাণের মন্তব্য ছিল, এই পদে বসে কোনও ব্যক্তিগত মতামত থাকতে পারে না। এটা সরকারের বিরুদ্ধাচারণ। এসবের মধ্যেই অভিষেকের খুড়তুতো ভাই ফেসবুকে পোস্ট করেন, শ্রীরামপুর নতুন সাংসদ চায়। আর সব মিলিয়ে যাবতীয় বিতর্ককে উসকে দিচ্ছে একের পর এক পোস্টার।

 

বন্ধ করুন