বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Fighting between teacher and parents: ইউনিট টেস্ট নিয়ে বচসা, গৃহ শিক্ষক ও অভিভবকদের সঙ্গে স্কুল শিক্ষকদের হাতাহাতি
স্কুলের চেয়ার টেবিল ভাঙচুর। প্রতীকী ছবি

Fighting between teacher and parents: ইউনিট টেস্ট নিয়ে বচসা, গৃহ শিক্ষক ও অভিভবকদের সঙ্গে স্কুল শিক্ষকদের হাতাহাতি

  • ঘটনার সূত্রপাত স্কুলের তৃতীয় ইউনিট টেস্ট নিয়ে। স্কুল কর্তৃপক্ষ নির্দিষ্ট দিনে তৃতীয় ইউনিট টেস্ট নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কিন্তু, তাতে অভিভাবক এবং গৃহ শিক্ষকের আপত্তি জানান। তাদের সেই আপত্তির কথা জানাতে বৃহস্পতিবার দুপুরে স্কুল চলাকালীন কর্তৃপক্ষের কাছে গিয়েছিলেন অভিভাবক এবং গৃহ শিক্ষকরা।

অভিভাবক এবং গৃহ শিক্ষকদের সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়লেন শিক্ষকরা। এমনই ঘটনা ঘটল নদিয়ার গাঙনাপুরের সরিষাডাঙা ড. শ্যামাপ্রসাদ হাইস্কুলে। কার্যত ধুন্ধুমার কাণ্ড বাঁধে স্কুল চত্বরে। স্কুলের চেয়ার টেবিল ভাঙচুর করার অভিযোগ উঠেছে অভিভাবকদের বিরুদ্ধে। ঘটনায় আহত হয়েছেন ৭ জন শিক্ষক। স্কুলে এমন কাণ্ডে কার্যত অবাক স্থানীয় বাসিন্দারা। ঘটনায় গাঙনাপুর থানার পুলিশ গৃহ শিক্ষক এবং অভিভাবকদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনার সূত্রপাত স্কুলের তৃতীয় ইউনিট টেস্ট নিয়ে। স্কুল কর্তৃপক্ষ নির্দিষ্ট দিনে তৃতীয় ইউনিট টেস্ট নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কিন্তু, তাতে অভিভাবক এবং বৃহৎ শিক্ষকের আপত্তি জানান। তাদের সেই আপত্তির কথা জানাতে বৃহস্পতিবার দুপুরে স্কুল চলাকালীন কর্তৃপক্ষের কাছে গিয়েছিলেন অভিভাবক এবং গৃহ শিক্ষকরা। তারা পরীক্ষার সময়সূচি বদলের আবেদন জানান স্কুল কর্তৃপক্ষকে। কিন্তু, তাদের আবেদনে সাড়া দেয়নি স্কুল কর্তৃপক্ষ। তাতেই ঘটে বিপত্তি। এই নিয়ে স্কুল শিক্ষকদের সঙ্গে অভিভাবক এবং গৃহ শিক্ষকদের কথা কাটাকাটি হয়। তারপরেই উত্তেজনা ছড়ায়। তাঁরা একে অপরের সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন।

এই ঘটনার জেরে টিফিনের পরে স্কুলের পঠন পাঠন কার্যত বন্ধ হয়ে যায়। ঘটনায় স্কুলের পক্ষ থেকে গৃহ শিক্ষক এবং অভিভাবক সহ মোট ৮ জনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। মারধরের পাশাপাশি স্কুলের একাধিক চেয়ার টেবিল ভাঙচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ জানিয়েছেন স্কুলের শিক্ষকরা। যদিও এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ। তবে পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

বন্ধ করুন