বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আমার মনে হয়, পার্থকে এই পরিস্থিতিতে আনা হয়েছে, দাবি রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্যের
সিঙুরের প্রাক্তন বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য। 

আমার মনে হয়, পার্থকে এই পরিস্থিতিতে আনা হয়েছে, দাবি রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্যের

  • রবীন্দ্রনাথবাবু বলেন, ‘পার্থ চট্টোপাধ্যায় আমাকে মাস্টারমশাই বলে ডাকতেন। কিন্তু তাঁর ভিতরে যে এমন কদর্য রূপ রয়েছে তা ভাবিনি। তবে আমার মনে হয়, পার্থকে এই পরিস্থিতিতে আনা হয়েছে।’

পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের এই রূপ তাঁর কল্পনাতীত। পার্থতে এই পরিস্থিতিতে এনেছেন অন্য কোউ। শিক্ষক দিবসে বিস্ফোরক দাবি করলেন তৃণমূল সরকারের প্রথম শিক্ষামন্ত্রী তথা সিঙুরের মাস্টারমশাই রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য। খাতায় কলমে বিজেপিতে থাকলেও বয়সের ভারে আর সক্রিয় রাজনীতি করতে পারেন না তিনি। বলেন, আমিও শিক্ষকের চাকরির জন্য প্রার্থীদের তালিকা দিয়েছিলাম। কিন্তু কারও চাকরি হয়নি।

এদিন এক সংবাদমাধ্যমকে রবীন্দ্রনাথবাবু বলেন, ‘পার্থ চট্টোপাধ্যায় আমাকে মাস্টারমশাই বলে ডাকতেন। কিন্তু তাঁর ভিতরে যে এমন কদর্য রূপ রয়েছে তা ভাবিনি। তবে আমার মনে হয়, পার্থকে এই পরিস্থিতিতে আনা হয়েছে।’

ভোটে সন্ত্রাস ছড়াতেই মজুত করা হয়েছিল বোমা, লোকপুর বিস্ফোরণের চার্জশিটে বলল NIA

তিনি জানান, ‘আমার কাছেও শিক্ষক নিয়োগের জন্য প্রার্থীদের তালিকা চাওয়া হয়েছিল। আমি তালিকা দিয়েছিলাম। ভেবেছিলাম চুক্তিভিত্তিক কোনও নিয়োগের জন্য চাইছে। তালিকায় কারও চাকরি হয়নি। এখন মনে হচ্ছে টাকা দিতে পারিনি তাই চাকরি হয়নি।’

৯১ বছরের রবীন্দ্রনাথবাবু সিঙুরের ৩ বারের বিধায়ক। প্রথম তৃণমূল মন্ত্রিসভায় স্কুলশিক্ষা মন্ত্রী ছিলেন তিনি। কয়েকমাস পরে তাঁকে কৃষি দফতরের দায়িত্ব দেওয়া হয়। ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে তাঁকে টিকিট দেয়নি তৃণমূল। উলটে দলে তাঁর বিরোধী গোষ্ঠী বলে পরিচিত বেচারাম মান্নাকে তাঁর আসনে টিকিট দেয় দল। এর পর বিজেপিতে যোগদান করেন রবীন্দ্রনাথবাবু। এদিন তিনি বলেন, ‘ধরতে গেলে বিজেপিতেই আছি। তবে সক্রিয় রাজনীতি করতে পারি না। এই তৃণমূল অচেনা লাগে। এখনকার দল আমার কাছে অবাঞ্ছিত।’

তিনি বলেন, ‘আমি শিক্ষামন্ত্রী থাকলে এই ধরণের দুর্নীতি প্রতিরোধ করতাম। কতটা পারতাম সেটা জানি না।’

 

বন্ধ করুন