বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ছানা নিয়ে এবার থেকে ওঠা যাবে না ট্রেনের সাধারণ কামরায়, নির্দেশ পূর্ব রেলের
প্রতীকি
প্রতীকি

ছানা নিয়ে এবার থেকে ওঠা যাবে না ট্রেনের সাধারণ কামরায়, নির্দেশ পূর্ব রেলের

  • যাত্রীদের অভিযোগ, বেলার দিকের অনেক ট্রেন কার্যত চলে যায় ছানার কারবারিদের দখলে। গোটা ট্রেনে ছানার বালতি তুলতে গিয়ে সাধারণ যাত্রীরাই ওঠানামা করতে পারেন না।

সঙ্গে ছানার বালতি বা ঝুড়ি থাকলে এবার থেকে ওঠা যাবে না ট্রেনের সাধারণ কামরায়। শুধুমাত্র ভ্যান্ডর কামরাতেই যাতায়াত করতে হবে ছানাব্যবসায়ীদের। পূর্ব রেলের তরফে জারি হয়েছে এমনই নির্দেশিকা। যার ফলে সাধারণ যাত্রীদের ভোগান্ত কমবে বলে মনে করা হচ্ছে।

কলকাতা লাগোয়া জেলাগুলি থেকে রোজ কয়েকশ’ কুইন্ট্যাল ছানা আসে শহরে। আর ছানা কলকাতায় আনার মূল পরিবহণ হল ট্রেন। বিশেষ করে লোকাল ও প্যাসেঞ্জার ট্রেনে করে শহরে আসে ছানা। বালতি বা ঝুড়িতে পরিষ্কার কাপড় দিয়ে বেঁধে ছানা পরিবহণ করা হয়। কিন্তু ছানার গন্ধে ট্রেনে অনেক সময় টেঁকা দায় হয়। বালতি উপচে ছানার জল ট্রেনে পড়ে বিরক্তিকর পরিস্থিতি তৈরি হয় কামরায়। সেই জল পচেও দুর্গন্ধ ছড়ায়।

যাত্রীদের অভিযোগ, বেলার দিকের অনেক ট্রেন কার্যত চলে যায় ছানার কারবারিদের দখলে। গোটা ট্রেনে ছানার বালতি তুলতে গিয়ে সাধারণ যাত্রীরাই ওঠানামা করতে পারেন না। এমনকী প্রতিবাদ করলে পালটা কটূ কথা শোনানোর অভিযোগও রয়েছে। এমনকী সম্প্রতি হাসনাবাদ শাখায় এক যুবককে ট্রেন থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে ছানা ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে।

শনিবার কৃষ্ণনগরে রেলপুলিশের সঙ্গে ছানা ব্যবসায়ীদের বৈঠকে বিষয়গুলি উঠে আসে। সেখানে সিদ্ধান্ত হয়েছে, এবার থেকে ভেন্ডার কামরা ছাড়া অন্য কোনও কামরায় ছানার বালতি বা ঝুড়ি তুলতে পারবেন না ছানা ব্যবসায়ীরা। ভেন্ডারের দরজা বন্ধ করতে পারবেন না তাঁরা। লালগোলা প্যাসেঞ্জার ও লোকাল ট্রেনগুলিতে এই নিয়ম লাগু হবে।

 

বন্ধ করুন