বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > মমতা বিরোধিতা ছেড়ে শুভেন্দুর কী করা উচিত? ফেসবুকে 'পাঠ' দিলেন রাজীব
শুভেন্দু অধিকারী এবং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)
শুভেন্দু অধিকারী এবং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)

মমতা বিরোধিতা ছেড়ে শুভেন্দুর কী করা উচিত? ফেসবুকে 'পাঠ' দিলেন রাজীব

মমতাকে তুষ্ট করার চেষ্টা, অভিযোগ বিজেপির।

‌সৌমিত্র খাঁ'র পর এবার রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে আক্রমণ করলেন বিজেপি নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। ফেসবুকে রাজ্যের বিরোধী দলনেতাকে বিজেপি নেতার পরামর্শ দিলেন, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে অযথা আক্রমণ না করে পেট্রোল, ডিজেল, রান্নার গ্যাসের যাতে মূল্যহ্রাস করা যায়, সেদিকে লক্ষ্য রাখা উচিত। অর্থাৎ বিজেপি থেকেও তৃণমূল দলীয় স্তরে যে বিষয়ে সরব হচ্ছে, এবার সেই বিষয়েই পোস্ট করতে দেখা গেল রাজীবকে।

এদিন ফেসবুক পোস্টে রাজীব লেখেন, ‘‌বিরোধী নেতাকে বলব, যাঁর নেতৃত্বে ও যাঁকে মুখ্যমন্ত্রী দেখতে চেয়ে বাংলার মানুষ ২১৩টি আসনে তাঁর প্রার্থীদের ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন সেই মুখ্যমন্ত্রীকে অযথা আক্রমণ না করে সাধারণ মানুষের দুর্দশা মুক্তির জন্য পেট্রল, ডিজেল ও রান্নার গ্যাসের মূল্য হ্রাস করাই এখন একমাত্র লক্ষ্য হওয়া উচিত।’‌ এর আগেও যখন রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি নিয়ে বিজেপির মধ্যে রব উঠেছিল, তখন ফেসবুক পোস্ট করে বিজেপির এই অবস্থানের বিরোধিতা করেছিলেন। ইতিমধ্যে তৃণমূলের তরফে পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে জেলায় জেলায় পেট্রল পাম্পের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। বিজেপি নেতা–নেত্রীরা অবশ্য পাল্টা পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে তৃণমূল সরকারকে কাঠগড়ায় তুলতে ব্যস্ত। তবে আর পাঁচটি বিজেপি নেতাদের পথে না হেঁটে এবার আলাদাভাবে পেট্রোপণ্যের মূল্যহ্রাসের সপক্ষে আওয়াজ তুললেন রাজীব।

রাজীবের এই ফেসবুক পোস্টের পিছনে বিশেষ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য আছে বলেই ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা। গত বিধানসভা ভোটে তৃণমূল প্রার্থীর কাছে ডোমজুড় কেন্দ্রে শোচনীয় হারের পর থেকে গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে দূরত্ব বাড়াতে শুরু করেন রাজীব। এরপর তাঁর একাধিক তৃণমূল নেতার বাড়িতে যাওয়া নিয়ে রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন তৈরি হয়। প্রথমে তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ, তারপরে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন তিনি।

বন্ধ করুন