বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Siliguri Municipality: বালি পাথরের সিন্ডিকেট নিয়ে বচসা, আক্রান্ত বিজেপি কাউন্সিলর, অভিযুক্ত তৃণমূল

Siliguri Municipality: বালি পাথরের সিন্ডিকেট নিয়ে বচসা, আক্রান্ত বিজেপি কাউন্সিলর, অভিযুক্ত তৃণমূল

শিলিগুড়িতে আক্রান্ত বিজেপি কাউন্সিলর। নিজস্ব ছবি।

সোমবার রাতে শিলিগুড়ির ৯ নম্বর ওয়ার্ডে বালি পাথরের সিন্ডিকেট নিয়ে এলাকায় বচসা বাঁধে। সেই বচসা মেটাতে গেলে এলাকারই প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলরের মদতে ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অমিত জৈনের ওপর হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। তড়িঘড়ি আহত কাউন্সিলরকে চিকিৎসার জন্য শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

বালি পাথরের সিন্ডিকেট নিয়ে বচসা। সেই বচসা থামাতে গিয়ে আক্রান্ত হলেন বিজেপি কাউন্সিলর। শিলিগুড়ির পুরনিগমের বিজেপি কাউন্সিলর তথা বিরোধী দলনেতা অমিত জৈনকে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে তিনি অভিযোগের আঙুল তুলেছেন। তৃণমূলের প্রাক্তন কাউন্সিলর প্রদীপ গোয়েলের মদতেই তাঁকে মারধর করা হয়েছ বলে অভিযোগ। যদিও তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

জানা গিয়েছে, সোমবার রাতে শিলিগুড়ির ৯ নম্বর ওয়ার্ডে বালি পাথরের সিন্ডিকেট নিয়ে এলাকায় বচসা বাঁধে। সেই বচসা মেটাতে গেলে এলাকারই প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলরের মদতে ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অমিত জৈনের ওপর হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। তড়িঘড়ি আহত কাউন্সিলরকে চিকিৎসার জন্য শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তাঁর চিকিৎসা চলছে। অমিত জৈনের অভিযোগ, হামলার ঘটনার পিছনে মদত রয়েছে প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলর প্রদীপ গোয়েলের। তাঁর আরও অভিযোগ, এই ওয়ার্ডে তৃণমূলের মদতে বালি পাথরের সিন্ডিকেট রাজ চলছে।

অন্যদিকে, এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে এলাকায় কোনও সিন্ডিকেট রাজ নেই বলে দাবি করেছেন প্রদীপ গোয়েল। পাশাপাশি হামলার ঘটনাও তিনি অস্বীকার করেছেন। বিরোধী দলনেতার ওপর হামলার ঘটনা নিয়ে এদিন থানায় জেলা বিজেপির পক্ষ লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

এদিকে, ঘটনার খবর পেয়ে মঙ্গলবার জেলা হাসপাতালে যান দার্জিলিং জেলা বিজেপির সভাপতি আনন্দময় বর্মন-সহ অন্যান্য বিজেপি নেতৃত্ব। আনন্দময় বর্মনের অভিযোগ, শিলিগুড়িতে আইনশৃঙ্খলা নেই। তিনি পুরনিগমের বিরোধী দলনেতার ওপর হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।এর পাশাপাশি, অমিত জৈনকে দেখতে শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালে যান মাটিগাড়া-নক্সালবাড়ির প্রাক্তন কংগ্রেস বিধায়ক শংকর মালাকার। তিনি শাসকদলের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ এনেছেন।

বন্ধ করুন