বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > গুদামে বিপুল পরিমাণে অবৈধভাবে মজুত করা রেশন সামগ্রী উদ্ধার, ধৃত ১
গুদামে বিপুল পরিমাণে অবৈধভাবে মজুত করা রেশন সামগ্রী উদ্ধার, ধৃত ১: ছবিটি প্রতীকী (‌ফাইল চিত্র)
গুদামে বিপুল পরিমাণে অবৈধভাবে মজুত করা রেশন সামগ্রী উদ্ধার, ধৃত ১: ছবিটি প্রতীকী (‌ফাইল চিত্র)

গুদামে বিপুল পরিমাণে অবৈধভাবে মজুত করা রেশন সামগ্রী উদ্ধার, ধৃত ১

কালনা থানার পুলিশ ও এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের আধিকারিকরা যৌথ অভিযান চালায় অকালপৌষ গ্রামের এক গুদামে।  

রেশন সামগ্রীর কালোবাজারির অভিযোগ উঠল পূর্ব বর্ধমানে। গুদামের মধ্যে থেকে বিপুল পরিমাণে অবৈধভাবে মজুত করে রাখা রেশনের সামগ্রী উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনায় ১ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। কালনা থানার পুলিশ ও এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের আধিকারিকরা যৌথ অভিযান চালায় অকালপৌষ গ্রামের এক গুদামে। সেখান থেকে বেআইনিভাবে মজুত করে রাখা ৭৫০ লিটার কেরোসিন তেল, ৭০ কুইন্টাল আটা, ৪০ ক্যুইন্টাল গম-‌সহ সরকারি সিলমোহর দেওয়া বিপুল পরিমাণে আটার প্যাকেট বাজেয়াপ্ত করেছে তারা।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনায় আনোয়ার শেখ ওরফে বাবলু নামে ওই গুদামের মালিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, উদ্ধার হওয়া সামগ্রীর কোনও বৈধ নথি দেখাতে পারেননি ওই গুদামের মালিক।

ঘটনা প্রসঙ্গে কালনা মহকুমার পুলিশ আধিকারিক সপ্তর্ষি ভট্টাচার্য বলেন, ‘জেলা এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ ও কালনা থানার পুলিশ অকালপৌষ গ্রামের একটি গুদামে অভিযান চালিয়ে প্রচুর পরিমাণে গম, আটা, কেরোসিন তেল বাজেয়াপ্ত করেছে। একইসঙ্গে আনোয়ার শেখকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, গ্রাহকদের প্রাপ্য রেশন কালোবাজারি করার উদ্দেশ্যেই ওই গুদামে মজুত করে রাখা হয়েছিল। কোথা থেকে এই সামগ্রী ধৃতের কাছে আসত বা এই চক্রের সঙ্গে কোনও রেশন ডিলার বা খাদ্য দফতরের কেউ যুক্ত রয়েছে কিনা, তা জানতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরেই অবৈধভাবে ওই গুদামে রেশনের গম, আটা, কেরসিন তেল মজুত করা হচ্ছিল। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, ধৃত আনোয়ার তাঁদেরকে জানিয়েছিল যে, বিভিন্ন এলাকার রেশন ডিলাররা তাঁদের সামগ্রী তার গুদামে মজুত করে রেখেছেন। সময় হলে, যে যার সামগ্রী এসে নিয়ে যান। স্বাভাবিকভাবেই এই বিষয় আর কেউ মাথা ঘামাননি। কিন্তু মঙ্গলবার এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ ও কালনা থানা পুলিশ ওই গুদামে হানা দিতেই চোখ কপালে ওঠে স্থানীয়দের। তখনই তাঁরা জানতে পারেন ওই গুদামে বেআইনিভাবে রেশনের সামগ্রী মজুত করা হচ্ছিল।

বন্ধ করুন