এতদিন রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে রেশন দুর্নীতির অভিযোগ তুলছিল বিজেপি। এবার নিজেদের কার্যালয়ে রেশনের বস্তা বস্তা চাল মজুতের অভিযোগ উঠল গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি জলপাইগুড়ির বানারহাটের তেলিপাড়ার।

আরও পড়ুন : Lockdown 2.0: সোমবার থেকে রাজ্যের এই জেলাগুলিতে শর্তসাপেক্ষে খুলবে দোকান, চলবে বাস

বৃহস্পতিবার সকালে কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দার থেকে তেলিপাড়ায় বিজেপির কার্যালয়ে চাল মজুতের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান স্থানীয় তৃণমূল নেতানেত্রীরা। যান স্থানীয় তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যা সীমা দাসও। তাঁরা দেখেন, বিজেপির কার্যালয়ে কয়েকশো কুইন্টাল চাল মজুত আছে। পিছনে লাগানো বিজেপির ব্যানার। লাগানো রয়েছে গেরুয়া শিবিরের নেতাদের ছবি। তারপরই বানারহাট থানার পুলিশ ও স্থানীয় ফুড ইন্সপেক্টরকে খবর দেওয়া হয়।

উদ্ধার হওয়া চালের বস্তা (ছবি সৌজন্য ফেসবুক)
উদ্ধার হওয়া চালের বস্তা (ছবি সৌজন্য ফেসবুক)

তৃণমূলের অভিযোগ, রেশন ডিলারের সঙ্গে যোগসাজশ করে মে'র পুরো রেশনের চাল হাতিয়ে নিয়েছে বিজেপি। শাসক দলের জলপাইগুড়ি জেলা সভাপতি কৃষ্ণকুমার কল্যাণী বলেন, 'এক রেশন ডিলার তাঁর কোটার পুরো চালটাই বিজেপিকে দিয়েছেন। ঘটনার তদন্ত চাই।'

আরও পড়ুন : লকডাউনের রাতে চুপিসাড়ে দরজায় ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছেন বোলপুরের ‘মাস্টারমশাই’

যদিও চাল মজুতের অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি। তাদের দাবি, গত বছর লোকসভা নির্বাচনের সময় নির্বাচনী কাজের জন্য কার্যালয়টি ভাড়া নেওয়া হয়েছিল। পরবর্তীতে তা ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল। তাহলে সেখানে বিজেপির ব্যানার লাগানো আছে কেন? তাতে বিজেপির জলপাইগুড়ি জেলা সভাপতি বাপী গোস্বামীর সাফাই, ফ্ল্যাগ ও ব্যানার খুলতে ভুলে গিয়েছিলেন তাঁরা। তাঁর বক্তব্য, মদের বোতল বা এ কে ৪৭ তো পাওয়া যায়নি। চাল পাওয়া গিয়েছে।

আরও পড়ুন : Lockdown 2.0: করোনা সংকট মোকাবিলায় ১.৫ লাখ কোটি টাকার পুনর্বাসন পরিকল্পনা তৈরি রাজ্যের

বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন জেলা খাদ্য আধিকারিক অমৃত ঘোষ। তিনি জানান, খাদ্য আধিকারিকের রিপোর্ট অনুযায়ী উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এদিকে পুলিশ সূত্রে খবর, অভিযুক্ত রেশন ডিলার-সহ দু'জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : ছত্তিশগড় থেকে হেঁটে কলকাতা পৌঁছলেন ৭ শ্রমিক, ভাত পেয়ে ভাসলেন চোখের জলে

বন্ধ করুন