বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বন দফতরের পাতা ফাঁদে ধরা দিল দক্ষিণরায়, আতঙ্ক কাটিয়ে স্বস্তিতে মথুরাখণ্ড
রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার খাঁচাবন্দি।

বন দফতরের পাতা ফাঁদে ধরা দিল দক্ষিণরায়, আতঙ্ক কাটিয়ে স্বস্তিতে মথুরাখণ্ড

  • বুধবার সকালে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারকে খাঁচাবন্দি করা গিয়েছে। তাই স্বস্তিতে মথুরাখণ্ড এলাকার বাসিন্দারা।

অবশেষে খোলা আকাশের তলায় নিঃশ্বাস নিল গোসাবার মথুরাখণ্ডের বাসিন্দারা। কারণ এই গ্রামেই ঢুকে পড়েছিল দক্ষিণরায়। মেরে দিয়েছিল ছাগল–গরুকে। গর্জনে আতঙ্কে গৃহবন্দি হয়ে দিন কাটাচ্ছিল বাসিন্দারা। এবার তা আর করতে হবে না। কারণ ধরা পড়ল দক্ষিণ ২৪ পরগনার গোসাবার মথুরাখণ্ড গ্রামে ঢুকে পড়া বাঘটি। বুধবার সকালে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারকে খাঁচাবন্দি করা গিয়েছে। তাই স্বস্তিতে মথুরাখণ্ড এলাকার বাসিন্দারা।

ঠিক কী করেছিল দক্ষিণরায়?‌ গত সোমবার গভীর রাতে সে পিরখালি জঙ্গল থেকে বেরিয়ে নদী সাঁতরে মথুরাখণ্ড গ্রামে ঢুকেছিল। তারপর সেখানে হাবল দাসের গোয়াল ঘরে ঢুকে তিনটি ছাগল এবং একটি গরুকে মেরে ফেলে। মঙ্গলবার সকালে গ্রামের মানুষজন বাঘের পায়ের ছাপ দখে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। বন দফতরের কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে বাঘ ধরার ফাঁদ পাতে।

কি কি ব্যবস্থা করা হয়েছিল?‌ বন দফতর সূত্রে খবর, ম্যানগ্রোভের জঙ্গল নাইলনের জাল দিয়ে ঘিরে ফেলা হয়। দেদার বাজি–পটকা ফাটানো হয়। দু’টি খাঁচাও পাতা হয়েছিল। এমনকী গ্রামের রাস্তায় আলো জ্বালানো হয়। রাত পাহারার ব্যবস্থা করা হয়। গ্রামের বিভিন্ন পথে বন দফতরের কর্মীদের ভাগ করে ছড়িয়ে দেওয়া হয়।

আর এই বিপুল আয়োজনে সফল হলেন বন দফতরের কর্মীরা। কারণ বুধবার সকালে খাঁচাবন্দি হয় রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার। একই সঙ্গে স্বস্তি পেয়েছেন মথুরাখণ্ড গ্রামের বাসিন্দারাও। শারীরিক পরীক্ষার পর বাঘটিকে সুন্দরবনের গভীর জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হবে। কুলতলি, সুন্দরবন, হলদিবাড়ির পর গোসাবায় সফল হলেন বন দফতরের কর্মীরা। সবাই আশা করছেন মুখ্যমন্ত্রী ফের পুরষ্কার দেবেন।

বন্ধ করুন