বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > দুয়ারে মামা, দরজার কাছেই হালুম! রাতভর হোটেলবন্দি সুন্দরবনের পর্যটকদল
নদী পেরিয়ে বাঘ একেবারে লোকালয়ের কাছাকাছি চলে আসে। (ছবি সৌজন্যে -টুইটার)

দুয়ারে মামা, দরজার কাছেই হালুম! রাতভর হোটেলবন্দি সুন্দরবনের পর্যটকদল

  • এক পর্যটক জানিয়েছেন, সারারাত হোটেলের মধ্যেই দরজায় খিল তুলে বন্দি অবস্থায় কাটিয়েছি। খুব ভয় লাগছিল।

দরজার সামনেই হালুম। আর সেই আতঙ্কে রাতভর ঘরের মধ্যেই কাটিয়ে দিলেন পর্যটকরা। শুক্রবার রাতে সুন্দরবনের সেই ঘটনা এখন ফিরছে লোকের মুখে মুখে। এদিকে পর্যটকদের একাংশের দাবি, শীতকাল পড়তেই সুন্দরবনে পর্যটকদের আনাগোনা বাড়তে শুরু করেছে। সুন্দরবনের খাঁড়িতে লঞ্চে করে ঘোরার সময় কেউ কেউ বাঘমামার দর্শন পেয়েও যাচ্ছেন। কিন্তু সেই বাঘ মামা যে একেবারে দোরগোড়ায় চলে আসবে তা কি আগে কেউ জানত? 

এক পর্যটক জানিয়েছেন, সারারাত হোটেলের মধ্যেই দরজায় খিল তুলে বন্দি অবস্থায় কাটিয়েছি। খুব ভয় লাগছিল। নদী পেরিয়ে বাঘ যে একেবারে লোকালয়ে চলে আসবে তা ভাবতেই পারিনি। মনে হচ্ছে এবার বাঘ আমাদের দেখার জন্য একেবারে হোটেলের দোরগোড়ায় চলে এসেছিল। কিন্তু ঠিক কী হয়েছিল ঘটনাটা?

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, শীতকালের রাত এমনিতেই নিঝুম। সন্ধ্যা নামার পরে পর্যটকরাও হোটেল ছেড়ে বিশেষ বাইরে বের হন না। এদিকে শনিবার রাতে মৎস্যজীবীরাই প্রথমে হালকা জঙ্গলের মধ্য়েই ডোরাকাটা জন্তুটার উপস্থিতি টের পান। আসলে সেটি ছিল একটি পূর্ণবয়স্ক রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার। সুন্দরবনের পিরখালির জঙ্গল থেকে পাখিরালয়ের সোনারগাঁ এলাকায় বাঘটি ঢুকে পড়েছিল। এরপরই বাঘ ঢোকার খবর দ্রুত চাউড় হয়ে যায়। হোটেলগুলিকেও সতর্ক করে দেওয়া হয়। পর্যটকদের মধ্যে এনিয়ে আতঙ্ক তৈরি হয়। 

 

বন্ধ করুন