বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কিডনি দিচ্ছি, বিক্রি করে চাকরি দিন:‌ মুখ্যমন্ত্রীর সামনেই বিক্ষোভ নন্দীগ্রামে
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও প্ল্যাকার্ড হাতে বিক্ষোভকারীরা। ফাইল ছবি : টুইটার
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও প্ল্যাকার্ড হাতে বিক্ষোভকারীরা। ফাইল ছবি : টুইটার

কিডনি দিচ্ছি, বিক্রি করে চাকরি দিন:‌ মুখ্যমন্ত্রীর সামনেই বিক্ষোভ নন্দীগ্রামে

  • এদিন মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের একেবারে শেষদিকে সভামঞ্চ সংলগ্ন জমায়েত থেকেই ওঠে আওয়াজ। প্ল্যাকার্ড হাতে একদল মহিলা বলতে থাকেন, ‘‌দিদি আমাদের বিষয়টা দেখুন। না হলে আমাদের আত্মহত্যা করতে হবে।

দিদি আমরা একটি করে কিডনি দিচ্ছি, বিক্রি করে চাকরি দিন— প্ল্যাকার্ডে এই কথা লিখেই নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর সভায় শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ দেখালেন চাকরিপ্রার্থীরা। একইসঙ্গে সোমবার নন্দীগ্রামের তেখালি মাঠে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভার সামনে চাকরির দাবিতে আওয়াজ তুললেন শিক্ষক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা।

এদিন মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের একেবারে শেষদিকে সভামঞ্চ সংলগ্ন জমায়েত থেকেই ওঠে আওয়াজ। প্ল্যাকার্ড হাতে একদল মহিলা বলতে থাকেন, ‘‌দিদি আমাদের বিষয়টা দেখুন। না হলে আমাদের আত্মহত্যা করতে হবে।’‌ জানা গিয়েছে, ওই মহিলারা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষক। তাঁরা বিশেষভাবে সক্ষমদের স্কুলে পড়ানোর জন্য প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন। কিন্তু তাঁদের অভিযোগ, ২০০৯ সালের পর থেকে কোনও শিক্ষক নিয়োগ হয়নি। অথচ প্রত্যেক স্কুলে অন্তত ২ জন করে শিক্ষক নিয়োগ হওয়ার কথা। প্রশিক্ষণ নেওয়ার পর থেকে তাঁরা বসে আছেন। চাকরি নেই।

শান্তিপূর্ণভাবেই বিক্ষোভ দেখিয়ে তাঁরা মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে দাবি জানাতে থাকেন, ‘‌আমরা আপনার সাথেই আছি। দয়া করে আমাদের বিষয়টা একটু দেখুন।’‌ একইসঙ্গে, একদল স্বাস্থ্যকর্মী এদিন তাঁদের বকেয়া ভাতার দাবিতে বিক্ষোভ দেখান।

পাশাপাশি তাঁদের থেকে একটু দূরে, জমায়েতের মাঝেই দুটো প্ল্যাকার্ড লক্ষ্য করা যায় এদিন। তা ধরা পড়েছে সভার ভিডিও–তেও। আর তা শেয়ার করা হয়েছে বঙ্গ বিজেপি–র টুইটার হ্যান্ডেলে। পোস্টারগুলির একটিতে লেখা, ‘‌দিদি আপনাকে আমরা বারবার চিঠি দিয়েছি। দিদিকে বলো–তে ফোনও করেছি। ফলাফল ০ (‌শূন্য‌)‌।’‌ আর একটিতে লেখা, ‘‌দিদি আমরা একটি করে কিডনি দিচ্ছি, বিক্রি করে চাকরি দিন।’‌

এদিন সভার ভিডিও–র কিছুটা অংশ টুইট করে বঙ্গ বিজেপি–র পক্ষ থেকে মমতাকে আক্রমণ করে বলা হয়েছে, ‘‌খুব কাছ থেকে দেখুন পিসি, কীভাবে আপনার অক্ষমতা আপনাকেই আক্রমণ করছে। এই মানুষগুলি তাঁদের কষ্ট প্রকাশ করার জন্য আপনার সভায় জড়ো হয়েছেন। এই কঠিন পরিস্থিতি আপনিই তাঁদের ওপর চাপিয়ে দিয়েছেন। আপনার ব্যর্থতার জন্যই আজ এই অবস্থা। বাংলা চায়, আপনি এবার বিদায় নিন!‌’‌

এবারই প্রথম নয়। সাম্প্রতিককালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোনও সভায় চাকরিপ্রার্থী বা অন্যরা এর আগেও বিক্ষোভ দেখিয়েছে। এর আগে বনগাঁ ও মেদিনীপুরের জনসভায় প্ল্যাকার্ড হাতে অনেককেই বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে দেখা গিয়েছিল। যা দেখে সভামঞ্চ থেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন মমতা। যদিও এদিন তিনি কোনওরকম ক্ষোভ প্রকাশ করেননি। তাঁকে কোনও মন্তব্য করতেও দেখা যায়নি।

বন্ধ করুন