বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > লড়াই নামবেন না, ভোটের দিন ঘোষণার পরই জানালেন সামশেরগঞ্জের কংগ্রেস প্রার্থী
(ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
(ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

লড়াই নামবেন না, ভোটের দিন ঘোষণার পরই জানালেন সামশেরগঞ্জের কংগ্রেস প্রার্থী

কংগ্রেস প্রার্থী জানিয়েছেন, ‘‌আমি একজন ব্যবসায়ী। কিছুদিনের জন্য রাজনীতিতে এসে আমার ব্যবসার খুব ক্ষতি হয়েছে। আর ব্যবসার ক্ষতি করতে পারব না।

‌আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর মুর্শিদাবাদের দুটি কেন্দ্র জঙ্গিপুর ও সামশেরগঞ্জে ভোট গ্রহণ। তার আগে কংগ্রেস শিবির জোর ধাক্কা খেল। সামশেরগঞ্জের কংগ্রেস প্রার্থী জয়দুর রহমান ইতিমধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি কংগ্রেসের হয়ে প্রচারে নামবেন না। অর্থাৎ ভোটের আগেই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে দাঁড়ালেন কংগ্রেস প্রার্থী।

জানা গিয়েছে, জয়দুর রহমান জঙ্গিপুরের তৃণমূল সাংসদ খলিলুর রহমানের নিজের ভাই। জয়দুর জানিয়েছেন, যেহেতু ওই কেন্দ্রে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র তিনি জমা দিয়েছিলেন, আর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন পেরিয়ে গিয়েছে, তাই তিনি নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ করবেন, তাঁর প্রার্থী পদ প্রত্যাহার করে নেওয়ার জন্য। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে দাঁড়ানো প্রসঙ্গে জয়দুর জানান, ‘‌স্থানীয় মানু্ষের অনুরোধে আমি ভোটে লড়তে রাজি হয়েছিলাম। এখন আমার দাদা জঙ্গিপুর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি। তাই দাদার সম্মানের কথা মাথায় রেখে নির্বাচনী প্রক্রিয়া থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলাম। তবে তৃণমূলের তরফ থেকে ভোটে না লড়ার জন্য চাপ আসেনি।’‌

একইসঙ্গে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অনিচ্ছুক কংগ্রেস প্রার্থী জানিয়েছেন, ‘‌আমি একজন ব্যবসায়ী। কিছুদিনের জন্য রাজনীতিতে এসে আমার ব্যবসার খুব ক্ষতি হয়েছে। আর ব্যবসার ক্ষতি করতে পারব না।’‌ উল্লেখ্য, গত বিধানসভা ভোট সামশেরগঞ্জ কেন্দ্রে প্রথমে মন্টু রহমানকে প্রার্থী করেছিল কংগ্রেস। কিন্তু ভোটের আগে করোনায় তাঁর মৃত্যু হয়। এরপর জয়দুরের নাম প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা করে কংগ্রেস। তবে জেলা কংগ্রেসের তরফে জানানো হয়েছে, জয়দুরকে যথেষ্ট সম্মান দিয়ে প্রার্থী করা হয়েছিল। কিন্তু তিনি যে ভোটে লড়তে পারবেন না সেটা দলকে এখনও জানাননি। গত বিধানসভা কেন্দ্রে মুর্শিদাবাদের এই দুই কেন্দ্রে প্রার্থীর মৃত্যুতে ভোট গ্রহণ স্থগিত হয়ে যায়।

বন্ধ করুন