চৌহাটা আদর্শ বিদ্যাপীঠ। গুগল ম্যাপ থেকে পাওয়া ছবি
চৌহাটা আদর্শ বিদ্যাপীঠ। গুগল ম্যাপ থেকে পাওয়া ছবি

পড়ুয়াদের মার খাওয়াই সার হল, সরস্বতী পুজো হল না হাড়োয়ার সেই স্কুলে

  • ২০০৯ সাল থেকে স্কুলে বন্ধ সরস্বতী পুজো। ফের পুজো চালুর দাবিতে পথ অবরোধ করে গত শুক্রবার স্থানীয়দের হাতে আক্রান্ত হন খুদে পড়ুয়ারা

সরস্বতী পুজো হল না হাড়োয়ার সেই স্কুলে। গোমড়া মুখেই দিনটা কাটল প্রায় ১,৭০০ পড়ুয়ার।

২০০৯ সাল থেকে সরস্বতী পুজো বন্ধ হাড়োয়ার চৌহাটা আদর্শ বিদ্যাপীঠে। অর্ধশতক পার করা এই স্কুলে পড়ুয়ার সংখ্যা প্রায় ১,৭০০। তার মধ্যে ৭৫ শতাংশই মুসলিম। যদিও স্কুলের প্রায় সমস্ত শিক্ষকই হিন্দু।

স্কুলে সরস্বতী পুজো ফের চালুর দাবিতে গত ২৪ জানুয়ারি রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় জুনিয়র বিভাগের কিছু পড়ুয়া। অভিযোগ তাদের মারধর করেন স্থানীয়রা। এর পরই শিরোনামে আসে হাড়োয়ার চৌহাটা আদর্শ বিদ্যাপীঠ।

শুক্রবারের ঘটনার জেরে সোমবার হাড়োয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন কয়েকজন অভিভাবক ও স্থানীয় বাসিন্দা। স্কুলের প্রধান শিক্ষক হিমাংশু শেখর মণ্ডলের কাছে ফের সরস্বতী পুজো চালুর দাবিতে স্মারকলিপি দেন তাঁরা। সঙ্গে সন্তানদের নিরাপত্তার স্বার্থে স্কুল চত্বরে বহিরাহতদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি ও সিসিটিভি লাগানোর দাবি তোলেন তাঁরা।

এই ঘটনায় রবিবার প্রধান শিক্ষক হিন্দুস্তান টাইমসকে জানিয়েছেন, ২০০৯ সালে স্কুলে নবি দিবস পালন নিয়ে উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল। স্থানীয় কিছু মানুষ ও পড়ুয়াদের একাংশ নবি দিবস পালনের বিরোধিতা করেছিল। এর পর শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে স্কুলে সরস্বতী পুজোও বন্ধ করা হয়। বুধবার ফোন করলে ধরেননি তিনি। হাড়োয়া থানার ওসি শংকর সিনহা বলেন, ওই স্কুলে পুজো হয়নি।

বন্ধ করুন