বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > SBSTC bus service: দুদিনে পড়ল সরকারি বাসের অস্থায়ী কর্মীদের আন্দোলন, আজও ব্যাহত SBSTC পরিষেবা
বিক্ষোভ করছেন সরকারি বাসের অস্থায়ী কর্মীরা। নিজস্ব ছবি।

SBSTC bus service: দুদিনে পড়ল সরকারি বাসের অস্থায়ী কর্মীদের আন্দোলন, আজও ব্যাহত SBSTC পরিষেবা

  • আইএনটিটিইউসির এই আন্দোলনের পিছনে রয়েছে। বুধবার থেকে তাদের কর্মবিরতি চালু হয়। বেতন বৃদ্ধি-সহ, স্থায়ীকরণ এবং আরও একাধিক দাবি-দাওয়া নিয়ে তাদের এই কর্মবিরতি চলছে। এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার একেবারেই বন্ধ রয়েছে এই সরকারি বাস পরিষেবা।

দুদিন ধরে অব্যাহত রইল দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থার অস্থায়ী কর্মীদের আন্দোলন। যার ফলে আজও সরকারি বাস পরিষেবা ব্যাপকভাবে ব্যাহত হয়েছে। টানা দুদিন ধরে সরকারি বাস পরিষেবা বিঘ্নিত হওয়ায় সমস্যায় পড়েছেন নিত্য যাত্রী থেকে শুরু করে পর্যটকরা। এমন অবস্থায় এখনও আন্দোলন বন্ধ করার ইঙ্গিত দিচ্ছেন না অস্থায়ী কর্মীরা। তাদের হুঁশিয়ারি, দাবি দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন।

আরও পড়ুন: দুর্গাপুজোয় সারারাত মিলবে সরকারি বাস, একশো বাস থাকছে জনগণের পরিষেবায়

তৃণমূল পরিচালিত শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসির এই আন্দোলনের পিছনে রয়েছে। বুধবার থেকে তাদের কর্মবিরতি চালু হয়। বেতন বৃদ্ধি-সহ, স্থায়ীকরণ এবং আরও একাধিক দাবি-দাওয়া নিয়ে তাদের এই কর্মবিরতি চলছে। এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার একেবারেই বন্ধ রয়েছে এই সরকারি বাস পরিষেবা। এর পাশাপাশি তারা অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হয়েছেন। দুর্গাপুর, সিউড়ি-সহ অন্যান্য দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থার (এসবিএসটিসি) বিভিন্ন বাস ডিপোতে অস্থায়ী কর্মীদের কর্মবিরতি বৃহস্পতিবারও লাগাতার চলতে থাকে। বিক্ষোভের ফলে দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন রুটের বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। দুর্গাপুরের বাস ডিপোতে প্রায় ২০০ জন অস্থায়ী কর্মী অবস্থান বিক্ষোভে অংশ নেন।

তাদের দাবি, তারা যে বেতন পাচ্ছেন তাতে সংসার চালানো সম্ভব হচ্ছে না। তারওপর সারা মাস কাজ পাচ্ছেন না তারা। তাদের দাবি, কমপক্ষে মাসে ২৬ দিন কাজ দিতে হবে। বেতন বৃদ্ধি করতে হবে। অস্থায়ী কর্মীচারীদের স্থায়ীকরণের ব্যবস্থাও করতে হবে। এছাড়াও, তাদের যে সমস্ত রুট রয়েছে সেই সমস্ত রুটেই বাস পরিষেবা চালু করতে হবে। এই ধরনের বিভিন্ন দাবিকে সামনে রেখে কর্মীরা বিক্ষোভ করার পাশাপাশি ও কর্মবিরতি পালন করছে।

টানা দুদিন ধরে দক্ষিণবঙ্গ বাস পরিষেবা বন্ধ থাকার ফলে নিত্যযাত্রী থেকে সাধারণ যাত্রী, এমনকি পর্যটকরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। বিক্ষোভকারীদের হুঁশিয়ারি দাবি গুলি না মানা হলে তারা অবস্থান বিক্ষোভ কর্মসূচি অনির্দিষ্টকালের জন্য চালিয়ে যাবেন।

বন্ধ করুন