বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Suicide in South 24 Pargana: পড়াশোনা ছেড়ে মোবাইলে আসক্তি, মায়ের বকুনিতে আত্মঘাতী হল স্কুল ছাত্রী

Suicide in South 24 Pargana: পড়াশোনা ছেড়ে মোবাইলে আসক্তি, মায়ের বকুনিতে আত্মঘাতী হল স্কুল ছাত্রী

অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী আত্মঘাতী। (প্রতীকী ছবি)

পারিবারিক সূত্রে জানা গিয়েছে, মিলির মোবাইলের প্রতি আসক্তি এতটাই বেড়ে গিয়েছিল যে বেশিরভাগ সময়ই সে মোবাইল নিয়ে পড়ে থাকত। মোবাইলে শুধু গেম খেলত। এনিয়ে আগেও তাকে বকাবকি করেছেন তার বাবা মা। বুধবারও মোবাইল নিয়ে গেম খেলছিল মিলি।

আগামী ৪ জুলাই থেকে স্কুলে পরীক্ষার কথা রয়েছে। কিন্তু, পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি না নিয়ে মোবাইলে মেতে উঠেছিল স্কুলছাত্রী। তাতেই ক্ষুব্ধ হয়ে স্কুল ছাত্রীকে বকুনি দিয়ে মোবাইল কেড়ে নিয়েছিলেন মা। আর সেই অভিমানে আত্মঘাতী হল অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। ঘটনাটি দক্ষিণ ২৪ পরগনার কাশীপুরের বাউনিয়া ঘোষপাড়া গ্রামের। এমন ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে ওই ছাত্রীর পরিবারে। ঘটনায় কান্নায় ভেঙে পড়েছেন তার মা। মৃত ছাত্রীর নাম মিলি ঘোষ। সে অষ্টম শ্রেণির পড়ুয়া।

পারিবারিক সূত্রে জানা গিয়েছে, মিলির মোবাইলের প্রতি আসক্তি এতটাই বেড়ে গিয়েছিল যে বেশিরভাগ সময়ই সে মোবাইল নিয়ে পড়ে থাকত। মোবাইলে শুধু গেম খেলত। এনিয়ে আগেও তাকে বকাবকি করেছেন তার বাবা মা। বুধবারও মোবাইল নিয়ে গেম খেলছিল মিলি। তখন পড়াশোনা না করার জন্য বকাবকি করেছিলেন তার মা এবং তার হাত থেকে মোবাইল কেড়ে নিয়ে চলে গিয়েছিলেন। এর কিছুক্ষণ পরে ঘরে ঢুকে মিলির ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান তার মা। শুধুমাত্র ফোন কেড়ে নেওয়ার কারণে ছাত্রী যে এরকম কাণ্ড ঘটাবে তা ঘুণাক্ষরেও টের পায়নি পরিবার। মিলির মা কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ৪ তারিখ থেকে পরীক্ষা ছিল। কিন্তু, পরীক্ষার জন্য পড়াশোনা না করে মোবাইল নিয়ে গেম খেলছিল। তাই আমি মোবাইল কেড়ে নিয়ে চলে এসেছিলাম। তারপরে দেখি গলায় দড়ি দিয়েছে। মোবাইলটাই কাল হল।’

ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে তড়িঘড়ি তার দেহ উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যান পরিবারের সদস্যরা। চিকিৎসকরা সেখানে তাকে মৃত ঘোষণা করেন। প্রসঙ্গত, করোনা পরিস্থিতির পর থেকেই স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকার ফলে অনলাইনে ক্লাস চলেছে। সেই সময় থেকেই পড়ুয়াদের মধ্যে মোবাইলের প্রতি আসক্তি বেড়েছে। তার পর থেকেই এই ধরনের ঘটনা বহু ঘটেছে।

বন্ধ করুন