বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > শ্যামাপ্রসাদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে থানায় হাজির সৌমিত্র, শুরু জল্পনা
সৌমিত্র খাঁ।
সৌমিত্র খাঁ।

শ্যামাপ্রসাদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে থানায় হাজির সৌমিত্র, শুরু জল্পনা

  • বুধবার শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে থানা থেকে বেরিয়ে সৌমিত্র খাঁ বলেন, ‘শ্যামাপ্রসাদবাবুর বয়স হয়েছে। ওনার কাছে রাজনীতি শিখেছি। তাঁর ওপর পুলিশ যা অত্যাচার করছে তা মানা যায় না। দুর্নীতির তদন্ত করতে হলে তো তৎকালীন জেলাশাসক ও মহকুমারশাসককেও গ্রেফতার করতে হয়।’

দুর্নীতির অভিযোগে গ্রেফতার রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে বিষ্ণুপুর থানায় হাজির হলেন স্থানীয় সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। বুধবার দুপুরে এই সাক্ষাৎ সেরে বেরিয়ে সৌমিত্র বলেন, ওনার কাছে রাজনীতি শিখেছি। তাই সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে এসেছিলাম। তবে তৃণমূলের দাবি, শ্যামাপ্রসাদবাবুর জামিন করাতে থানায় গিয়েছিলেন সৌমিত্র।

বিষ্ণুপুর পুরসভায় ১০ কোটি টাকা টেন্ডার কেলেঙ্কারির অভিযোগে গত রবিবার সকালে শ্যামাপ্রসাদবাবুকে গ্রেফতার করে পুলিশ। মঙ্গলবার তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করা হয়েছে। আপাতত ৪ দিনের পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন বিষ্ণুপুরের ৩৪ বছরের পুরপ্রধান। যাঁকে বিষ্ণুপুর শহরের মানুষ চেনেন কত্তাবাবু বলে।

বুধবার শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে থানা থেকে বেরিয়ে সৌমিত্র খাঁ বলেন, ‘শ্যামাপ্রসাদবাবুর বয়স হয়েছে। ওনার কাছে রাজনীতি শিখেছি। তাঁর ওপর পুলিশ যা অত্যাচার করছে তা মানা যায় না। দুর্নীতির তদন্ত করতে হলে তো তৎকালীন জেলাশাসক ও মহকুমারশাসককেও গ্রেফতার করতে হয়।’ সঙ্গে তিনি বলেন, ‘বিষ্ণুপুরে আজ যারা শ্যামাপ্রসাদবাবুর বিরুদ্ধে কথা বলছেন তারা ওনার কাছ থেকেই রাজনীতি শিখেছিল।’

তবে তৃণমূলের দাবি, শ্যামাপ্রসাদের জামিন করাতে থানায় গিয়েছিলেন সৌমিত্র। জামিন করাতে না পেরে সৌজন্য সাক্ষাতের কথা বলছেন।

 

বন্ধ করুন