বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > পাঁচটি তদন্ত কেন্দ্র গড়ে তুলল রাজ্য সরকার, রেল পুলিশের ফাঁড়িকে নয়া রূপ
 রেল পুলিশ এলাকার পাঁচটি ফাঁড়িকে তদন্ত কেন্দ্রের রূপ দিল রাজ্য সরকার।
 রেল পুলিশ এলাকার পাঁচটি ফাঁড়িকে তদন্ত কেন্দ্রের রূপ দিল রাজ্য সরকার।

পাঁচটি তদন্ত কেন্দ্র গড়ে তুলল রাজ্য সরকার, রেল পুলিশের ফাঁড়িকে নয়া রূপ

  • এই পরিস্থিতি বিচার করে এবার শিয়ালদহ রেল পুলিশ এলাকার পাঁচটি ফাঁড়িকে তদন্ত কেন্দ্রের রূপ দিল রাজ্য সরকার।

একবার চলন্ত ট্রেন থেকে ক্যানিংয়ের এক তরুণীর মোবাইল চুরি হয়ে যায়। কিন্তু রেল পুলিশের কাছে গেলেও সেখানে তাঁর অভিযোগ নেওয়া হয়নি। অভিযোগ, তাঁকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় সোনারপুরের জিআরপি’‌র কাছে। চলন্ত ট্রেনে অপরাধের অভিযোগ জানাতে বারাসত–বসিরহাট, রানাঘাট–কল্যাণী, শিয়ালদহ–বিধাননগর রোড, সোনারপুর–ক্যানিং কিংবা দমদম–ব্যারাকপুর ছুটে বেড়ানোর তালিকায় রয়েছেন আরও অনেক ভুক্তভোগী।

এই পরিস্থিতি বিচার করে এবার শিয়ালদহ রেল পুলিশ এলাকার পাঁচটি ফাঁড়িকে তদন্ত কেন্দ্রের রূপ দিল রাজ্য সরকার। ক্যানিং, ব্যারাকপুর, বসিরহাট, কল্যাণী এবং বিধাননগর রোডে রেল পুলিশের ফাঁড়িকে ওই তদন্ত কেন্দ্রে পরিবর্তিত করা হয়েছে। এখন থেকে এই পাঁচটি কেন্দ্রেও যাত্রীদের অভিযোগ জমা নেওয়া যাবে এবং মামলা দায়ের করে তদন্ত করা হবে। ওই সব তদন্ত কেন্দ্রে নিয়োগ করা হবে অতিরিক্ত পুলিশকর্মী এবং সিভিক ভলান্টিয়ারও।

রেল পুলিশ সূত্রের খবর, আগে ফাঁড়ি ছিল। কিন্তু তদন্ত করার অধিকার ছিল না। লক–আপ না থাকায় অভিযুক্তকে গ্রেফতার করলেও রাখার ব্যবস্থা ছিল না। বহু দূরের রেল পুলিশের থানায় ধৃতদের নিয়ে গিয়ে লক–আপে রাখতে হতো। অনেকের বক্তব্য, তদন্ত কেন্দ্র চালু হলেও কর্মী বা পরিকাঠামো পুরনো আমলের। সুতরাং সব ক্ষেত্রেই ভুগতে হচ্ছে রেল পুলিশকে।

বন্ধ করুন