বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > 'কৃষক বন্ধুর আবেদনকারীর সংখ্যা কমাতে ইচ্ছে করে পোর্টাল বন্ধ নবান্নের, দেউলিয়া হবে রাজ্য', বিসফোরক অভিযোগ শুভেন্দুর
শুভেন্দু অধিকারী। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
শুভেন্দু অধিকারী। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

'কৃষক বন্ধুর আবেদনকারীর সংখ্যা কমাতে ইচ্ছে করে পোর্টাল বন্ধ নবান্নের, দেউলিয়া হবে রাজ্য', বিসফোরক অভিযোগ শুভেন্দুর

  • ভূমি সংস্কার সংক্রান্ত পোর্টাল বন্ধ রেখে ইচ্ছে করে 'কৃষক বন্ধু' প্রকল্পের আবেদনকারীর সংখ্যা কমাতে চাইছে রাজ্য।

ভূমি সংস্কার সংক্রান্ত পোর্টাল বন্ধ রেখে ইচ্ছে করে 'কৃষক বন্ধু' প্রকল্পের আবেদনকারীর সংখ্যা কমাতে চাইছে রাজ্য। এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করলেন বিজেপি বিধায়ক তথা রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। এদিন টুইট করে শুভেন্দু অধিকারী লেখেন, 'ভূমি তথ্য সংক্রান্ত পোর্টাল ইচ্ছে করে বন্ধ করে রেখেছে নবান্ন।'

শুভেন্দু অধিকারীর অভিযোগ, 'ভূমি তথ্য সংক্রান্ত পোর্টাল সাম্প্রতিককালে ঠিক ভাবে কাজ করছে না। ইচ্ছে করে এই পোর্টাল বন্ধ করে রেখেছে নবান্ন যাতে দুয়ারে সরকারে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের আবেদনকারীর সংখ্যা কম হয়। এটা পশ্চিমবঙ্গ সরকারের দেউলিয়া হওয়ার ইঙ্গিত।'

তিনি আরও লেখেন, 'এক দশক ধরে বর্ধিত ব্যয় এবং সামান্য রাজস্বের কারণে খালি হওয়া রাজ্যের কোষাগারের উপর চাপ কমানোর জন্য জনগণের বিরুদ্ধে এই নোংরা কৌশল চালানো হচ্ছে। রাজ্যের মুখ্যসচিব এবং ভূমি সংস্কার সচিব স্মারকি মহাপাত্র এই বিষয়টি নিয়ে নিশ্চিত হওয়ার জন্য যথেষ্ট আন্তরিক কি?'

উল্লেখ্য, এবারের বিধানসভা ভোটের আগে তৃণমূল কংগ্রেসের ইস্তাহারে যে ১০টি প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, তার মধ্যে অন্যতম ছিল 'কৃষক বন্ধু' প্রকল্পের আওতায় বরাদ্দ দ্বিগুণ করা। সেইমতো বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় আসার দেড় মাসের মধ্যে সেই প্রকল্পের ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। গত ১৭ জুন তিনি জানিয়েছিলেন, সেদিন থেকেই জেলায়-জেলায় কৃষকদের টাকা দেওয়ার কাজ শুরু হবে। রাজ্য প্রশাসন সূত্রে খবর, সেইমতো ১৫ দিনের মধ্যে ৬১,২১,৮৮০ চাষির অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠিয়ে দেয় রাজ্য সরকার। সেজন্য রাজ্যের কোষাগার থেকে মোট ১,৮০০ কোটি টাকা খরচ হয়।

 

বন্ধ করুন