বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > নেতাজি দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হলে আজ দেশে এত দুঃখ কষ্ট থাকত না: শুভেন্দু
শনিবার গয়েশপুরে শুভেন্দু।
শনিবার গয়েশপুরে শুভেন্দু।

নেতাজি দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হলে আজ দেশে এত দুঃখ কষ্ট থাকত না: শুভেন্দু

  • গয়েশপুরের গোল বাজারে ১৮ জানুয়ারি বিজেপি কার্যালয় ভাঙচুর এবং কর্মীদের মারধর করার অভিযোগ ওঠে। আজ শুভেন্দু বাবু সেখানে যান।

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই প্রধানমন্ত্রীর ডাকা বৈঠকে অংশগ্রহণ করেননি পশ্চিমবঙ্গের আইএএস ও আইপিএসরা। আইপিএস, আইএএস এবং আইএফএসর আধিকারিকদের নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে আইন সংশোধন করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এরপর আর কোনও অফিসার মুখ্যমন্ত্রীর কথা শুনবেন না। শনিবার নদিয়ার কল্যাণীতে একটি দলীয় বৈঠকে এসে একথা বললেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।

কেন্দ্রীয় প্রকল্পের বাস্তবায়ন নিয়ে শনিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বিভিন্ন রাজ্যের জেলাশাসকদের বৈঠক ডেকেছিলেন। তবে পশ্চিমবঙ্গের কোনও জেলাশাসক তাতে অংশগ্রহণ করেননি। শুভেন্দুবাবুর দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে তাঁর সচিব গৌতম সান্যাল জেলাশাসকদের প্রধানমন্ত্রীর ডাকা বৈঠকে অংশগ্রহণ না করতে নির্দেশ দিয়েছিলেন।

গয়েশপুরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি আরও অভিযোগ করেন, জেলাশাসক, পুলিশ সুপার-সহ সেন্ট্রাল ক্যাডারের আধিকারিকরা কেন্দ্রীয় সরকারের সব সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করেন। অথচ চলেন রাজ্য সরকারের কথায়। এই আইন সংশোধন হলে এই জেলাশাসকরাই আর মুখ্যমন্ত্রী কথা শুনবেন না।

গয়েশপুরের গোল বাজারে ১৮ জানুয়ারি বিজেপি কার্যালয় ভাঙচুর এবং কর্মীদের মারধর করার অভিযোগ ওঠে। আজ শুভেন্দু বাবু সেখানে যান। গোয়ায় তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয় ভাঙচুর প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সংবাদমাধ্যম তৃণমূলকে ত্রিপুরায় গাছে তুলে দিয়েছিল। গোয়াতেও তাই হচ্ছে।

তিনি বলেন, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু যদি ভারতবর্ষের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হতেন তাহলে আজকের ভারতবর্ষে এই দুঃখ, কষ্ট, যন্ত্রণা ও বেকারত্ব থাকত না।

 

বন্ধ করুন