বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > তপন কান্দু মামলার ক্যাভিয়েট দাখিল সুপ্রিম কোর্টে, রাজ্য যাচ্ছে সর্বোচ্চ আদালতে?
নিহত কাউন্সিলর তপন কান্দু

তপন কান্দু মামলার ক্যাভিয়েট দাখিল সুপ্রিম কোর্টে, রাজ্য যাচ্ছে সর্বোচ্চ আদালতে?

  • গত ১৩ মার্চ গুলি করে খুন করা হয় কংগ্রেস কাউন্সিলর তপন কান্দু। এই নিয়ে দলীয় কাউন্সিলর খুনে সিবিআই তদন্তের দাবি করেছিল কংগ্রেস। তাই কলকাতা হাইকোর্টে মামলা হয়। তাতে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেয় বিচারপতি রাজশেখর মান্থার বেঞ্চ। সেটা চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চের দ্বারস্থ হয় রাজ্য সরকার। 

কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে, তপন কান্দু খুনের ঘটনা সিবিআই তদন্তই করবে। সেক্ষেত্রে রাজ্যের আবেদন খারিজ হয়েছিল আদালতে। সিবিআই তদন্তের নির্দেশ বহাল রাখার বিষয়টি নিয়ে এবার রাজ্য সরকার সুপ্রিম কোর্টে যেতে পারে বলে মনে করছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। তাই সুপ্রিম কোর্টে ক্যাভিয়েট দাখিলের আবেদন জানালেন নিহত কংগ্রেস কাউন্সিলরের স্ত্রী।

ঠিক কী মনে করছেন অধীর?‌ এই বিষয়ে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী বলেন, ‘‌কলকাতা হাইকোর্টে সরকারি কোষাগারের টাকা খরচ করে ঝালদার কংগ্রেস কাউন্সিলর তপন কান্দুর খুনিদের আড়াল করার চেষ্টা সফল হল না। দিদির সরকার সুপ্রিম কোর্ট যাবার প্রস্তুতি নিচ্ছে। নির্লজ্জ সরকারের কুৎসিত মানসিকতা বাংলার মানুষ দেখছে।’‌

তারপর ঠিক কী ঘটল?‌ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির আশঙ্কার পরই সুপ্রিম কোর্টে ক্যাভিয়েট দাখিলের আবেদন জানালেন নিহত কংগ্রেস কাউন্সিলরের স্ত্রী। তপন কান্দুর স্ত্রী পূর্ণিমা কান্দু বলেন, ‘‌এই খুনের পিছনে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারা জড়িত। তাই তৃণমূল সরকার ভয় পাচ্ছে। সিবিআই যাতে তদন্ত না করে তার জন্য সুপ্রিম কোর্টে যেতে চাইছে। সিবিআই তদন্তের উপর আমদের পূর্ণ ভরসা আছে। আমি চাই দোষীরা ফাঁসির সাজা পাক।’‌

উল্লেখ্য, গত ১৩ মার্চ গুলি করে খুন করা হয় কংগ্রেস কাউন্সিলর তপন কান্দু। এই নিয়ে দলীয় কাউন্সিলর খুনে সিবিআই তদন্তের দাবি করেছিল কংগ্রেস। তাই কলকাতা হাইকোর্টে মামলা হয়। তাতে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেয় বিচারপতি রাজশেখর মান্থার বেঞ্চ। সেটা চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চের দ্বারস্থ হয় রাজ্য সরকার। সোমবার সেই মামলায় রাজ্য সরকারের আবেদন খারিজ হয়।

বন্ধ করুন